kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

ধর্মীয় অজ্ঞতাও দায়ী

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোনো ধর্মই জঙ্গিবাদ, চোরাগোপ্তা হামলা ও মানুষ হত্যার কথা বলে না; শান্তির ধর্ম ইসলাম তো নয়ই। নিরাপত্তা বাহিনীর নিরাপত্তা বলয় ভেদ করে জঙ্গিরা যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের কার্যসম্পাদন করছে, নিজেদের জীবনের প্রতি তাদের কি কোনো মায়া নেই? তারা কি পৃথিবীতে নিজেদের উচ্ছিষ্ট মনে করে? না, তাদেরও জীবনের প্রতি মায়া আছে; নিজেদের তারা উচ্ছিষ্টও ভাবে না। এই অন্ধকার পথ বেছে নেওয়ার অন্যতম বড় কারণ, ধর্ম সম্পর্কে তাদের ভাসা ভাসা জ্ঞান অথবা পুরোপুরি অজ্ঞতা। ভিন্ন ধর্ম ও সেসব ধর্মাবলম্বীদের প্রতি ইসলাম ধর্মের যে চমৎকার মূল্যবোধ, তা ওই বিপথগামী জঙ্গিদের তাদের প্রশিক্ষকরা জানতে দেয় না। ইসলাম ধর্ম তার অনুসারীদের ভিন্ন ধর্মের লোকের সঙ্গে সর্বোচ্চ সম্প্রীতি বজায় রাখতে বলেছে। ইসলামে যে ‘জিহাদের’ উল্লেখ রয়েছে, তার অর্থ কোনোভাবেই নিঃসন্দেহে প্রচলিত জঙ্গিবাদ নয়। ইসলামে জিহাদ একটি সুনির্দিষ্ট অর্থজ্ঞাপক শান্তি প্রতিষ্ঠার সর্বশেষ পদক্ষেপকে বলে। নবীজির জিহাদ ছিল নিজেরা হঠকারীদের আক্রমণের শিকার হয়ে পাল্টা বিশৃঙ্খলাকে দমন ও শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। অন্যের উপাসনালয়ে হামলা ও অন্যের ধর্ম পালনে বাধা ও তাদের হত্যা করা ইসলামের শিক্ষা নয়। আমাদের শিক্ষাঙ্গনের প্রাথমিক স্তর থেকেই এসব বিষয়ে শিক্ষার্থীদের নৈতিক শিক্ষা দিতে হবে। মনে গেঁথে দিতে হবে ধর্মের আসল বার্তা। কারণ কোনো ধর্মই ভূপৃষ্ঠে সন্ত্রাসবাদের কথা বলে না।

মুফতি আব্দুল্লাহ আল হাদী

ব্যাংক কলোনি, সাভার, ঢাকা। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা