kalerkantho

কোটার কোনো প্রয়োজন নেই

৬ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোটা প্রথা এমন একটি ব্যবস্থা, যেখানে কম মেধাবী একজন চাকরিপ্রার্থী মেধাবী কাউকে হটিয়ে চাকরি পেয়ে যায়। অথচ সংবিধানে বলা হয়েছে, প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োগ বা পদ লাভের ক্ষেত্রে সব নাগরিকের জন্য সুযোগের সমতা থাকবে। আমাদের দেশে কোটা প্রথার যাত্রা শুরু হয়েছে কিছু জটিলতা রেখেই, ফলে বেকার সমস্যার জন্য বড় মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যখন দেখি কোটা প্রথাকেই বর্তমানে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে, তখন খারাপ লাগে। কোটা প্রথা অব্যাহত থাকলে কিছু সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। যেমন—যে জাতি মেধার মূল্যায়ন করে না, সেই জাতি কখনো মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে না; ফলে দেশ একসময় পিছিয়ে পড়বে। শিক্ষার প্রতি ছেলে-মেয়েদের আগ্রহ কমে আসবে। দেশে হানাহানি বাড়বে। মেধাবীরা দেশের বাইরে চলে যেতে উদ্বুদ্ধ হবে। পিয়ন দিয়ে অফিস চালাতে গেলে একটি অফিসের যে অবস্থা হয়, দেশের ঠিক সেই অবস্থা হবে। আমি নিজেই যেহেতু ভুক্তভোগী, তাই আমি এর ঘোর বিরোধী। আবার কোটা প্রথা বাতিল করলে সমাজের অনগ্রসর একটি শ্রেণি সহজে উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় আসবে না। কিন্তু তাদের সংখ্যা খুব অল্প। কারো ভালো চাইলে যেকোনো উপায়ে তাকে সহযোগিতা করা যায়। কিন্তু যখন তাকে রাষ্ট্র পরিচালনার মতো গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নিয়ে আসা হবে, তখন একটু ভেবে দেখতে হবে। কারণ তখন তার ওপর একটা জাতির ভাগ্য নির্ভর করবে।

মো. হাসানুর রহমান

মাজিহাট, কুষ্টিয়া।

মন্তব্য