kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ‌বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস উদযাপন

অনলাইন ডেস্ক   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৬:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ‌বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস উদযাপন

ফার্মাসিস্টদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং স্বাস্থ্য সেবা খাতে তাদের অবদানকে সম্মান জানিয়ে ‌'‌বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস ২০২২' উপলক্ষে আজ রবিবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে র‍্যালির আয়োজন করা হয়। ছবি : সংগৃহীত

একজন পেশাদার ফার্মাসিস্টের কাজ কেবল ওষুধ প্রস্তুতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে না। বরং উৎপাদন থেকে শুরু করে ওষুধ উন্নয়ন, মান নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিক্রিয়াসহ আরো নানাবিধ কাজ পর্যন্ত বিস্তৃত। এছাড়া, কমিউনিটি ফার্মাসিস্ট ও ক্লিনিক্যাল ফার্মাসিস্ট হিসেবেও একজন ফার্মাসিস্ট দক্ষতার সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবায় নিজের ভূমিকা পালন করে চলেছেন। একজন ফার্মাসিস্ট স্বাস্থ্য সেবাখাতের সর্বশেষ ধাপ ওষুধ সেবনের আগে রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য পেশাদার, এবং কোভিড পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য সেবায় বরাবরই অটুট ভূমিকা রেখে এসেছেন।

বিজ্ঞাপন

ফার্মাসিস্টদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং স্বাস্থ্য সেবা খাতে তাদের অবদানকে সম্মান জানিয়ে ‌'‌বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস ২০২২' উপলক্ষে আজ রবিবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে র‍্যালির আয়োজন করা হয়।

ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের সহযোগিতায় এই র‍্যালির আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসিউটিক্যাল ক্লাব। র‍্যালির উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. এম ইসমাইল হোসাইন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব হেলথ অ্যান্ড লাইফ সায়েন্সের ডিন অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ রেজা, ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিএম সায়েদুর রহমান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

উপ-উপাচার্য এম ইসমাইল হোসাইন ফার্মেসি অনুষদের নিয়মিত এসব সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান দেখে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেন। ইন্ডাস্ট্রিসহ ওষুধের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ, ওষুধের মান নিশ্চিতকরণের ক্ষেত্রে ফার্মাসিস্টদের ভূমিকা তিনি আবারও মনে করিয়ে দেন।

উপ-উপাচার্য বলেন, ‌সুস্থ, নিরাপদ পৃথিবী তৈরিতে এবং ভাইরাসজনিত রোগ দমনে ফার্মাসিস্টদের ভূমিকা দারুণ প্রশংসনীয়।

স্কুল অব হেলথ অ্যান্ড লাইফ সায়েন্সের ডিন অধ্যাপক হাসান মাহমুদ রেজা ফার্মাসিস্টদের যথাযথ সম্মান নিশ্চিতের বিষয়ে কথা বলেন এবং ভবিষ্যতে এর উন্নতি হবে বলেও তিনি আশা ব্যক্ত করেন। স্বাস্থ্যসেবার প্রত্যেক শাখায় ফার্মাসিস্টদের কাজ আরো প্রসারিত হবে।

ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের চেয়ারম্যান ড. জি এম সায়েদুর রহমান ফার্মাসিস্টদের শুভকামনা জানিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ উন্নতি সাধন নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনার কথা ব্যক্ত করেন।

এসিআই ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ও গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের অর্থায়নে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অনুষদের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং ক্লাব সদস্যদের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে ওঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণ।



সাতদিনের সেরা