kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিসিএস ভাইভায় প্রশ্ন ছিল ‘বঙ্গবন্ধু কতবার খুলনা গিয়েছেন, বলতে পারবেন?’

এম এম মুজাহিদ উদ্দীন

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১১:২৮ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



বিসিএস ভাইভায় প্রশ্ন ছিল ‘বঙ্গবন্ধু কতবার খুলনা গিয়েছেন, বলতে পারবেন?’

মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। এটিই আমার জীবনের প্রথম বিসিএসের ভাইভা। প্রশ্ন করা হয়েছিল ২০ মিনিটের মতো। কয়েকটি প্রশ্ন ইংরেজিতে করা হয়েছিল, উত্তরও ইংরেজিতে দিয়েছি

চেয়ারম্যান :  আপনার প্রথম পছন্দ পুলিশ ক্যাডার, অথচ দ্বিতীয় স্থানে আনসার ক্যাডার নেই কেন?

আমি : আমি যে পেশায়ই ক্যারিয়ার শুরু করি আমার ইচ্ছা ওই পেশার সর্বোচ্চ পর্যায়ে গিয়ে সেবা প্রদান করা।

বিজ্ঞাপন

পুলিশপ্রধানের সর্বোচ্চ পদ আইজিপি, যেখানে পুলিশ ক্যাডার থেকেই নিয়োগ দেওয়া হয়। তবে আনসার ক্যাডারের শীর্ষ পদটিতে আনসার ক্যাডার থেকে নিয়োগ দেওয়া হয় না। এ কারণেই সমমনা দুটি পেশা হলেও পুলিশ ক্যাডারের পরই আনসার ক্যাডারটি দেওয়া হয়নি।
চেয়ারম্যান :  বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের সর্বোচ্চ পদবি কোনটি?

আমি : মন্ত্রিপরিষদসচিব (স্যার ভিন্ন মত পোষণ করেছেন)।

চেয়ারম্যান :  আপনার বাড়ি খুলনায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কতবার খুলনা গিয়েছেন, বলতে পারবেন?

আমি : স্যার, জাতির পিতা কলকাতা পড়ার সময় খুলনা হয়ে নিয়মিত কলকাতায় যাতায়াত করেছেন। তবে তিনি ঠিক কতবার খুলনায় গিয়েছেন জানা নেই। একবার গোয়েন্দাদের ফাঁকি দিয়ে তিনি কলকাতা থেকে খুলনা হয়ে গোপালগঞ্জ এসেছেন এবং পূর্ব পাকিস্তান আমলে খুলনা জেলে ছিলেন—এই দুই ঘটনা জাতির পিতার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’তে রয়েছে।

এক্সটার্নাল-১ : নারীর ক্ষমতায়ন কেন দরকার? নারীরা উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করছেন, সন্তান লালন করছেন, চাকরি করছেন। তাহলে তাঁদের ক্ষমতায়নের অপ্রাপ্তি কোথায়?

আমি : উল্লিখিত সব কিছুই নারীর অধিকার। নারীর ক্ষমতায়ন বলতে নারীর সিদ্ধান্ত গ্রহণ এবং অর্থনৈতিক স্বাধীনতাকেই বোঝায়। এই দুই ক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়ন না থাকলে অন্য সব ক্ষেত্রে নারীর ভূমিকা সীমিত হয়ে পড়ে। তাই এসব অধিকারের সঙ্গে সঙ্গে ক্ষমতায়নও প্রয়োজন।

এক্সটার্নাল-১ :  কোন খাতে নারীরা বৃহৎ পরিসরে কাজ করছেন, দেশে অবদান রাখছেন?

আমি : জাতীয় সংসদ থেকে শুরু করে সরকারি চাকরি—সব জায়গা থেকে নারীরা অবদান রাখছেন।

এক্সটার্নাল-১ : এখানে তো ১ শতাংশ নারীও নেই। বড় স্কেলে তাঁরা কোথায় কাজ করছেন?

আমি : গার্মেন্ট খাতে, কুটির শিল্প, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প।

এক্সটার্নাল-১ : এসডিজি কী? এসডিজির গোল ও লক্ষ্যমাত্রা কয়টি?

আমি : SDG-র পূর্ণরূপ হলো Sustainable Development Goal। SDG হলো জাতিসংঘ কর্তৃক প্রণীত একটি কর্মপরিকল্পনা, যা বিশ্বব্যাপী শান্তি, সমৃদ্ধি, শিক্ষা বিস্তারসহ ২০৩০ সালের মধ্যে সবার জন্য একটি ভালো ও টেকসই ভবিষ্যতের অর্জনের কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন। SDG-র গোল ১৭টি এবং লক্ষ্যমাত্রা ১৬৯টি।

এক্সটার্নাল-১ : SDG ও MDG-র পার্থক্য কী?

আমি : SDG ২০১৫ সালে গৃহীত হয়, যা ধনী-গরিব সব রাষ্ট্রের জন্য প্রযোজ্য।

MDG ২০০০ সালে গৃহীত হয়, যা কেবল দরিদ্র রাষ্ট্রগুলোর জন্য প্রযোজ্য।

এক্সটার্নাল-১ : ট্রেড ওয়ার কী?

আমি : বর্তমান সময়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার চলমান অসম বাণিজ্য প্রতিযোগিতা। যেখানে এক দেশ অন্য দেশের পণ্যের ওপর নিষেধাজ্ঞাসহ অতিরিক্ত কর আরোপ করছে।

এক্সটার্নাল-১ : Dumping ও Antidumping কী?

আমি : একটি দেশের ভেতরে উৎপাদিত পণ্যের থেকে কম দামে একই পণ্য আমদানি করার ঘটনাকে ডাম্পিং বলে। সরকার যখন দেশীয় শিল্প টিকিয়ে রাখতে বিদেশি স্বল্প মূল্যের পণ্যের ওপর অতিরিক্ত কর আরোপ করে সেটাই অ্যান্টিডাম্পিং।

এক্সটার্নাল-২ : Why do you want to join Bangladesh police?

আমি : I learned that Education is the backbone of a nation but now i believe that discipline is the backbone of a nation. Bangladesh police is one of the highly disciplined force of Bangladesh, that is one my reasons to join BD police.

Another reason is it’s uniform. Again, fascination for multi colour work experience is also played a key role. Like every other citizen of the nation i want to serve my country and pursuing this profession will give me the opportunity to serve from the president to rootless. All of these grounds triggered me to be an ideal Police Officer.

(এরপর প্রাসঙ্গিকভাবে ইংরেজিতে আরেকটি প্রশ্ন করা হয়েছে, গুছিয়ে উত্তর দিয়েছি)

এক্সটার্নাল-২ : অ্যাডমিন দ্বিতীয় পছন্দ কেন?

আমি : প্রথম চয়েস দেওয়ার ক্ষেত্রে আমি আমার ব্যক্তি পছন্দের ওপর প্রাধান্য দিয়েছি। পরবর্তী চয়েসগুলোতে কাজের পরিধি, সুযোগ, গতিশীলতা, ক্যারিয়ার গ্রোথ এসব বিষয় ভেবে দিয়েছি। সে হিসেবে অ্যাডমিন আমার কাছে সব থেকে পছন্দসই বলে মনে হয়েছে।

এক্সটার্নাল-২ : এসপি ও ডিসির মধ্যকার সম্পর্ক কেমন?

আমি : ‘পিআরবি-১২’ ধারা অনুযায়ী একটি জেলার এসপি ও ডিসি মহোদয়ের মধ্যে কেমন সম্পর্ক থাকবে, তা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা আছে। যেখানে ডিসি মহোদয় জেলার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী কমিটির প্রধান।

এক্সটার্নাল-২ : তাহলে একজন এসপি জেলার ডিসির অধীনে কাজ করেন?

আমি : একজনকে তো সার্বিকভাবে সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকার ডিসি মহোদয়কে সে দায়িত্ব অর্পণ করেছে। অন্যদিকে একজন এসপি নিজের বাহিনীর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ একচ্ছত্রভাবে উপভোগ করেন। এখানে ডিসির কোনো হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই।

এক্সটার্নাল-১ : আপনার অনার্সের পঠিত বিষয় কিভাবে পুলিশিংয়ে কাজে লাগবে?

আমি : শিক্ষা পর্ব সম্পন্ন করতে আমাকে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে, যা আমার মস্তিষ্কের কার্যক্রিয়া বৃদ্ধি করেছে। এ ছাড়া ল্যাবে দীর্ঘক্ষণ কাজ করতে হয়েছে, যা আমার মনঃসংযোগ ও ধৈর্যধারণের শিক্ষা দিয়েছে, করেছে সহনশীল, যা আমার কর্মব্যস্ত পেশায় দারুণভাবে ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এ ছাড়া রাসায়নিক উপাদান বিশ্লেষণের ক্ষমতা আমাকে পুলিশের বিশেষ ইউনিটে কাজে লাগানোর সুযোগ করে দেবে বলে আমার বিশ্বাস।

চেয়ারম্যান :  আপনি এখন আসতে পারেন।

আমি : ধন্যবাদ স্যার। আসসালামু আলাইকুম।

 



সাতদিনের সেরা