kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

গোঁফ রেখে আলোচিত শায়জা পেয়েছেন স্বামীর সমর্থন

অনলাইন ডেস্ক   

১২ আগস্ট, ২০২২ ২১:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোঁফ রেখে আলোচিত শায়জা পেয়েছেন স্বামীর সমর্থন

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের কেরালা রাজ্যের পঁয়ত্রিশ বছর বয়সী শায়জা লিঙ্গ সংক্রান্ত বাঁধাধরা নিয়মগুলো ভেঙ্গে দিয়েছেন। কান্নুর জেলায় এই নারী বাসিন্দা বছরের পর বছর গর্বের সাথে গোঁফ রেখে চলেছেন। এবং আশ্চর্যের বিষয় হলো, তার এই গোঁফ কেটে ফেলার কোনো পরিকল্পনা নেই। এ ব্যাপারে তার স্বামী কিংবা পরিবারও কোন আপত্তি করেনি।

বিজ্ঞাপন

একদিন হঠাৎ তিনি ঠোঁটের উপর কিছু চুল দেখতে পান যা আস্তে আস্তে গোঁফের মতো ঘন হতে শুরু করে। কিন্তু অন্য নারীদের মতো তা ফেলে না দিয়ে শায়জা গোঁফ রেখে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। গোঁফের জন্য পুরো জেলায় তিনি খুব জনপ্রিয়।

শায়জা তার হোয়াটসঅ্যাপের স্ট্যাটাসে নিজের একটি ছবি দিয়ে লিখেছেন, 'আমি আমার গোঁফ ভালবাসি। ' এছাড়া বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শায়জা বলেন, 'আমি কখনই এটা ভাবি না যে আমি সুন্দর না। কারণ আমার গোঁফ এমন কোনো বস্তু নয়, যেটি থাকা উচিত না। '

অনেকেই শায়জার এই পছন্দকে ভালোভাবে দেখেন। আবার অনেকে ট্রলও করেন। অনেকেই তাকে গোঁফ রাখতে নিষেধ করেছেন। কিন্তু শায়জা বলেছেন, এটি তার পছন্দ। কী রাখা উচিত এবং কী রাখা উচিত নয়- সে সিদ্ধান্ত তিনিই নেবেন। গোঁফ নিয়ে পরিবারের সদস্যদের অবস্থান নিয়ে শায়জা বলেন, তার গোঁফ রাখা নিয়ে স্বামী লক্ষ্মণন এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কোনো আপত্তি নেই।

শায়জা আরও বলেন, তার স্বামী লক্ষণন কখনই তার গোঁফ কিংবা তার মেয়েকে নিয়ে কোনো বিরূপ মন্তব্য করেন না। তার মেয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ছে। শায়জা জোর দিয়ে বলেন যে, পরিবার যেহেতু তাকে সমর্থন করে তাই অন্যরা তার সম্পর্কে কী ভাবে, সেটা নিয়ে তিনি চিন্তিত নন। তবে গত এক দশকে তার শরীরে প্রায় ছয়বার অস্ত্রোপচার হয়েছে। এর মধ্যে একবার তার স্তন থেকে টিউমার এবং তার জরায়ু থেকে একটি সিস্ট অপসারণ করা হয়। পাঁচ বছর আগে তার জরায়ুও কেটে ফেলা হয়।

শায়জা মনে করে, এত শারীরিক সমস্যা কাটিয়ে উঠার পর এই গোঁফ তাকে মানসিক এবং শারীরিকভাবে আরও শক্তিশালী করেছে।

সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া



সাতদিনের সেরা