kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

সৌদিতে সততার যে দৃষ্টান্ত গড়লেন ডেমরার আব্দুর রহমান

অনলাইন ডেস্ক   

৩ জুলাই, ২০২২ ১২:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সৌদিতে সততার যে দৃষ্টান্ত গড়লেন ডেমরার আব্দুর রহমান

ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়া।

হজ করতে গিয়ে সাত লাখ ফ্রাংক কুড়িয়ে পেয়ে মালিককে ফিরিয়ে দিলেন বাংলাদেশি হাজি আব্দুর রহমান। বিশাল অংকের বৈ‌দে‌শিক মুদ্রা প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দিয়ে প্রশংসায় ভাসছেন এই বাংলাদেশি হাজি।

রাজধানীর ডেমরার বাসিন্দা আব্দুর রহমান। হজ পালনের উদ্দেশে তিনি গতমাসে সৌদি আরবে যান।

বিজ্ঞাপন

গত সোমবার মদিনা শরীফে একটি বৈদেশিক মুদ্রার বান্ডিল কুড়িয়ে পান এই বাংলাদেশি হাজি। সেগুলো ছিল পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর মুদ্রা ফ্রাংক। তিনি হিসাব করে দেখেন সেখানে সাত লাখ ফ্রাংক রয়েছে।

এরপ‌র ‘সাম আফ্রিকান ফ্রাংক ফাউন্ড’ অর্থাৎ কিছু আফ্রিকান ফ্রাংক পাওয়া গেছে লেখা কাগজ হা‌তে মস‌জি‌দে নববীর আশেপা‌শে প্রকৃত মা‌লিক‌কে খুঁজতে থা‌কেন আব্দুর রহমান। এভাবে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে বুরকিনা ফাসো থেকে আসা এক হাজি দাবি করেন টাকাগুলোর মালিক তিনি। ওই হাজি পরে নিজের দাবির পক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ দিলে আব্দুর রহমান তাকে তার টাকা ফিরিয়ে দেন। এসময় বুরকিনা ফাসোর ওই হাজী আব্দুর রহমানকে আবেগে জড়িয়ে ধরেন।

আব্দুর রহমান এক ফেসবুক পোস্টে লেখেন, ‘টাকা হারানোর লোকটাকে খোঁজে বের করতে পেরেছি। লোকটা তার অর্থ হাতে পেয়ে অঝোরে কান্নায় ভেঙে পড়েন। আমাকে জড়িয়ে ধরে দোয়া করেন। ’

আব্দুর রহমানের এই ঘটনা ফেসবুকেও ভাইরাল হয়ে যায়। কয়েকটি ফেসবুক গ্রুপে তাকে নিয়ে পোস্ট করা হয়। তার ছবি পোস্ট করে একটি গ্রুপে লেখা হয়, ‘হজে গিয়ে কুড়িয়ে পাওয়া ৭ লাখ ফ্রাংক মা‌লিক‌কে ফি‌রি‌য়ে দি‌লেন বাংলা‌দে‌শের আব্দুর রহমান। আল্লাহ আব্দুর রহমান ভাইকে উত্তম প্রতিদান করুন। ’

মদিনায় বাংলাদেশ হজ মিশনের একজন কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশি হাজি আব্দুর রহমানের এই মহানুভবতায় সৌদি আরবে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে। আমরা ওই হাজিকে ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য তার অবস্থান জানার চেষ্টা করছি।



সাতদিনের সেরা