kalerkantho

শুক্রবার । ১ জুলাই ২০২২ । ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ । ১ জিলহজ ১৪৪৩

বন্যার্ত ৬ হাজার পরিবারের পাশে ডা. ফেরদৌস খন্দকারের টিম

অনলাইন ডেস্ক   

২৩ জুন, ২০২২ ১০:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বন্যার্ত ৬ হাজার পরিবারের পাশে ডা. ফেরদৌস খন্দকারের টিম

স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত সুনামগঞ্জ ও সিলেট। হাজার হাজার বসতবাড়ি পানির নিচে চলে গেছে, পানিবন্দি হয়ে দিন কাটাচ্ছে লক্ষাধিক মানুষ। অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মতো সেবা দিতে এগিয়ে এসেছে আমেরিকা প্রবাসী ডাক্তার ফেরদৌস খন্দকারের দেবিদ্বার স্বেচ্ছাসেবী টিম।

গত সোমবার তিনি তার টিমের ৩ জন স্বেচ্ছাসেবীকে সিলেট ও সুনামগঞ্জ পাঠিয়েছেন স্থানীয় মেয়র এবং জেলা প্রশাসকের খাবার ও চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে কথা বলার জন্য।

বিজ্ঞাপন

একটি ট্রলার ভাড়া করা হয় আগামী ১৫ দিনের জন্য যার মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা ও খাবার বিতরণ করা হবে। ইতিমধ্যে গত মঙ্গলবার দেবিদ্বার থেকে ট্রাকবোঝাই করে মালামাল নিয়ে ২০ জনের একটি স্বেচ্ছাসেবী টিম সিলেট এবং সুনামগঞ্জ পৌঁছে। সেখানে ৬ হাজার পরিববারের জন্য শুকনো খাবার নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়া হয়। প্রথমে প্রায় ২ হাজার প্যাকেট পাঠানো হয়। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলো প্রতিদিন এক ট্রাক বোঝাই করে পাঠানো হবে। প্রতি ট্রাকের সঙ্গেই স্বেচ্ছাসেবীরা ধাপে ধাপে ১০০ জনের মতো সুনামগঞ্জ ও সিলেট যাবেন। গত ৩ দিন ধরে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শেখ রাসেল ফাউন্ডেশন দেবিদ্বার উপজেলা শাখার অফিসে ৩০ জন সেচ্ছাসেবী প্যাকেটিং করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন।  

ত্রাণসামগ্রী ও প্যাকের মধ্যে আছে মুড়ি, চিড়া, গুড়, পাউরুটি, বিস্কুট, খাবার স্যালাইন, মোমবাতি, গ্যাসলাইট, নিরাপদ পানি ইত্যাদি ৷ হাওরে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য ২ জন চিকিৎসক সিলেট থেকে নেয়া হয়েছে ১৪ দিনের জন্য। তারা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ট্রলার দিয়ে ঘুরে ঘুরে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ওষুধ এবং সেবা দেবেন।

ডাক্তার ফেরদৌস খন্দকার করোনাকালীন নিজের জীবন বাজি রেখে দেশের মানুষের জন্য ছুটে এসেছিলেন। বিদেশে বসে প্রতিটা মুহূর্ত তিনি খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। তিনি জানান, প্রয়োজন হলে খাদ্যের ট্রাক আরও বাড়ানো হবে। আমি আছি দেশের মানুষের পাশে।
 
সুনামগঞ্জের ৯০ শতাংশ বাড়িঘর নাকি পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। মূল্যবান জিনিসপত্র বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছে মানুষ। মানবেতর জীবনযাপন করছে বানভাসি সাধারণ মানুষ। তাদের নিরাপদ আশ্রয় দরকার, খাবার দরকার, দরকার আরও নানা ধরনের সাহায্য। আশা করবো, সুনামগঞ্জের দুর্গত মানুষের সাহায্যার্থে সরকারের পাশাপাশি দেশের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো এগিয়ে আসবে৷ পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপই গ্রহণ করবে। আসুন, বিপদাপন্ন মানুষগুলোর পাশে আমরা আমাদের সবটুকু সামর্থ্য আছে তা দিয়ে পাশে দাঁড়াই।



সাতদিনের সেরা