kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

ক্যাডার পদ সৃষ্টির পূর্বেই পদায়ন, কর্মকর্তাদের মধ্যে অসন্তোষ

অনলাইন ডেস্ক   

২০ জুন, ২০২২ ২৩:০৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্যাডার পদ সৃষ্টির পূর্বেই পদায়ন, কর্মকর্তাদের মধ্যে অসন্তোষ

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ২৮তম, ৩০তম, ৩১তম, ও ৩২তম বিসিএস নিয়োগ পরীক্ষার মাধ্যমে সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত ২৫ জন ক্যাডার কর্মকর্তাকে জুনিয়র বানিয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প, ননক্যাডার এবং পিএসসি হতে নিয়োগপ্রাপ্ত ৯০ (নব্বই) জন সহকারী প্রকৌশলীকে শত কোটি টাকার দুর্নীতির মাধ্যমে ক্যাডারভুক্ত ও সিনিয়রিটি প্রদান করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।  

গত ১৫ জুন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনে জনস্বাস্থ্যে ক্যাডার পদ সৃষ্টির পূর্বেই ওই পদে কর্মকর্তাদের পদায়নের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

রাজস্ব খাতে যোগদানের তারিখ হতে ওই ৯০ জনকে ক্যাডারভুক্ত করায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের বর্তমান প্রধান প্রকৌশলী, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী, পদোন্নতিপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীরা ওই ৯০জন কর্মকর্তার তুলনায় জ্যেষ্ঠতায় পিছিয়ে পড়েছেন। এতে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিনিয়র ক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ ও হতাশা বিরাজ করছে।

বিজ্ঞাপন

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প থেকে বিভিন্ন সময়ে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরিত ৩২ জন ও বিভিন্ন সময়ে নন-ক্যাডার ও পিএসসি হতে নিয়োগকৃত  ৫৮ জন, মোট ৯০ জন সহকারী প্রকৌশলীকে ক্যাডারভুক্তির উদ্দেশ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিধি-৫ শাখা কর্তৃক ৩০ মে বিসিএস (জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল) নিয়োগ বিধিমালা সংশোধন করা হয়েছে।  

ওই বিধিমালায় ক্যাডারভুক্তির সুনির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ না করে 'অবিলম্বে কার্যকর’ করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। কিন্তু স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক বিসিএস (জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল) ক্যাডারের উক্ত সংশোধিত নিয়োগ বিধিমালার অপব্যাখ্যা করে বিপুল অবৈধ অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে পূর্বের তারিখে ৯০ জন কর্মকর্তাকে ক্যাডারভুক্তির প্রজ্ঞাপন জারি করার অভিযোগ রয়েছে।

ক্যাডারভুক্তির প্রজ্ঞাপনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্তৃক সংশোধিত নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করা হয়নি মর্মে অভিযোগ উঠেছে। ওই ক্যাডার পদগুলো সৃষ্টি হয়েছিল ১ জানুয়ারি ২০১৯ সালে। কিন্তু তাদের ক্যাডারভুক্তি দেখানো হয়েছে ১ জুলাই ২০০৪ সাল থেকে।


অভিযোগ রয়েছে, ২২ জানুয়ারি ২০১৯ এর ৯৫ জনের ক্যাডারভুক্তির প্রজ্ঞাপনটি নিয়োগবিধি সংশোধন ব্যাতিরেকেই করা হয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্তৃক সংশোধিত নিয়োগবিধি অনুসরণ না করে স্থানীয় সরকার বিভাগের একটি মহল ১৫ জুন, ২০২২ তারিখে পূর্বের ন্যায় কর্মকর্তাদের রাজস্ব খাতে যোগদানের তারিখ দেখিয়ে ৯০ জনের প্রজ্ঞাপনটি অনৈতিক ও নিয়ম বহির্ভূতভাবে জারি করে।  

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, কয়েকটি ক্যাডার বাদে অন্য ক্যাডার সার্ভিসে যোগ্যতা থাকলেও পদ শূন্য না থাকায় পদোন্নতি দেওয়া যায় না। কিন্তু জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল ক্যাডারে কর্মরত ক্যাডার কর্মকর্তারা পদোন্নতির সকল শর্তাবলী ও যোগ্যতা অর্জনের পাশাপাশি পদ শূন্য থাকা স্বত্ত্বেও তারা পদোন্নতি পাচ্ছেন না।  

তিনি আরো বলেন, অবৈধ প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে এখন তাদেরকে সিনিয়রিটির দিক থেকে পিছিয়ে দিয়ে পদোন্নতির দরজা চিরতরে বন্ধ করে দেয়া হলো। প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে আসা কর্মকর্তাদের বিভিন্ন ক্যাডারে অন্তর্ভুক্তির নিয়ম থাকলেও তা কিভাবে রাজস্বখাতে যোগদানের তারিখ থেকে ৯০ কর্মকর্তা ক্যাডারভুক্ত করা হলো তা সত্যিই বিস্ময়কর ও নিবিড় তদন্তের দাবি রাখে।



সাতদিনের সেরা