kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

অনিয়ন্ত্রিত গাড়ি চালিয়ে রিকশায় আঘাত, চালক তাসকিন দশম শ্রেণির ছাত্র

অনলাইন ডেস্ক   

২১ নভেম্বর, ২০২১ ১৭:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনিয়ন্ত্রিত গাড়ি চালিয়ে রিকশায় আঘাত, চালক তাসকিন দশম শ্রেণির ছাত্র

গত দুই দিন সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে একটি ভিডিও নিয়ে জোর চর্চা চলছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ঢাকার একটি রাস্তায় কয়েকটি গাড়ি পার্কিং করা। তরুণ, যুবকরা আড্ডা দিচ্ছে। এদের মধ্যেই একজন অভাসবশত কিংবা শখে মোবাইলের ভিডিও ক্যামেরা চালু করে কিছু একটা ধারণ করার চেষ্টা করছে, মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই ক্যামেরার ফ্রেমে ঢুকে পড়ে একটি কালো রঙের প্রাইভেট কার। 

মানে ওই রাস্তা দিয়ে আকস্মিকভাবে একটি কালো রঙের প্রাইভেট কার ছুটে আসে। অস্বাভাবিক গতিতে ছুটে আসা এই গাড়ির সঙ্গে সঙ্গেই অভ্যাসবশত মোবাইল ক্যামেরা ঘুরে যায়। দেখা যায়, অনিয়ন্ত্রিত অবস্থায় ছুটে আসা গাড়িটি সজোরে ধাক্কা মারল একটি রিকশাকে। একটা আর্তনাদ শোনা গেল, চুরমার হয়ে যাওয়া রিকশার একটি চাকা গড়িয়ে গেল একটু ডানে।

ভিডিওটি দেখলে মনে হবে হয়তো কোনো সিনেমার দৃশ্য। কিন্তু ঢাকার রাস্তায় অনিয়ন্ত্রিত গতিতে প্রাইভেট কার চালায় কিছু কিশোর তরুণ বা যুবক, এটি তারই অংশ। সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন গ্রুপে এমন অভিযোগ হামেশাই আসে। তবে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ হয়ে যাওয়ায় এই ভিডিও নিয়ে বিভিন্ন সোশ্যাল গ্রুপে চর্চা বেড়ে যায়, যখন শোনা গেল ওই দুর্ঘটনায় শুধু রিকশাচালকই নন, আরোহী ফখরুলের হাত ভেঙেছে আর তার কোল থেকে ছিটকে পড়ে ৬ মাস বয়সী বাচ্চার পা ভেঙেছে। রিকশাচালকও আহত হয়েছেন মারাত্মকভাবে।

তবে যারা ভিডিও দেখেছেন, তারা হয়তো প্রথমেই অনুমান করে নেবেন যে এটা ওই রিকশায় যদি কোনো যাত্রী থেকে থাকেন তাহলে তার বাঁচার সম্ভাবনা নেই। আরোহী ফখরুল, ৬ মাস বয়সী বাচ্চা ও রিকশাওয়ালা বেঁচে গেছেন নেহাত কপাল গুণে, অন্তত নেটিজেনদের এমনই অভিমত। 

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সাইবার পেট্রোলিংয়ের অংশ হিসেবে ভাইরাল ভিডিওটি তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার বিপ্লব কুমার সরকারের নজরে আসে। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি অধীনস্থ সব পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রাইভেট কারটির চালককে শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন। পুলিশের তৎপরতায় প্রাইভেট কার ও চালককে আটক করা সম্ভব হয়েছে। শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে হাতিরঝিল থানা এলাকা থেকে (ঢাকা-মেট্রো গ-৩৫-২২৬৩) প্রাইভেট কারটি হেফাজতে নেয় হাতিরঝিল থানা পুলিশ। এরপর রাত ৩টা ৪০ মিনিটে মেহেরপুর জেলা পুলিশের সহযোগিতায় চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানাধীন হাট বোয়ালিয়া নতুন বাজার এলাকা থেকে তাসকিনকে আটক করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগ। 

ভিডিও শেয়ার দিয়ে একজন লিখেছেন, 'এই ভিডিওতে রিকশায় যাদের দেখছেন তাদের মধ্যে আমার বান্ধবীর হাজবেন্ড এবং তাদের বেবি ছিল। বেবিটার অবস্থা ভালো না। আমি জানি এখানে অনেকেই কার ইন্থুয়াজিস্ট আছেন, যারা কম বয়সেই গাড়ি চালিয়েছেন। কিন্তু সব কিছুরই একটা নিয়ম আছে। এখানে যেই ঘটনাটি ঘটেছে এটা কি স্রেফ একটা অ্যাকসিডেন্ট?

বেপরোয়া গাড়িচালকের পরিচয় 
বেপরোয়াভাবে এইভাবে গাড়ি চালাচ্ছিল যে তার নাম তাসকিন। ফেসবুকে নামটা একটু নকশা করেই ইংরেজি হরফকে ওপর-নিচ করে লিখেছে। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ঘেঁটে দেখা যায়, পেশা কন্টেন্ট ক্রিয়েটর লেখা, অর্থাৎ ইউটিউব বা টিকটক কন্টেন্ট বানানোই তাসকিনের কাজ। অবশ্য এটাই তার মূল কাজ নয়, পড়াশোনাও করে তাসকিন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার হাফিজ আল ফারুক জানিয়েছেন, প্রাইভেট কারের চালক তাসকিনের বাসা রাজধানীর মগবাজারে। সে রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র।

ভাইরাল ওই ভিডিওর নিচে বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর অসংখ্য অভিযোগ আসছে। ঢাকার অনেক রাস্তায় এমন চিত্র নিয়মিত বলেও জানাচ্ছেন নেটিজেনরা। অনেক দুর্ঘটনা ঘটছে, তবে সেসব আলোচনায় আসছে না।



সাতদিনের সেরা