kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রামের সঙ্গে সম্পৃক্ততা দ্বিগুণ হবে দক্ষিণ কোরিয়ার

রাষ্ট্রদূতের অঙ্গীকার

অনলাইন ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৫৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চট্টগ্রামের সঙ্গে সম্পৃক্ততা দ্বিগুণ হবে দক্ষিণ কোরিয়ার

কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের (দক্ষিণ কোরিয়া) রাষ্ট্রদূত লি জাং-গুন বাংলাদেশের প্রবেশদ্বার চট্টগ্রামে সম্প্রতি দ্বিতীয়বারের মতো সফর করেন। ১৬-১৮ অক্টোবর এই সফরে তিনি চট্টগ্রামস্থ কোরিয়ান সম্প্রদায়, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ এবং সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাত করেন।

গত ১৬ই অক্টোবর, রাষ্ট্রদূত লি চট্টগ্রামে কোরিয়ান সম্প্রদায়ের সাথে একটি নৈশভোজ ও সংলাপ আয়োজন করেন। ২০২১ সালে কোরিয়ান অ্যাসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠার জন্য অভিনন্দন জানিয়ে তিনি চট্টগ্রামে কোরিয়ান জনগণের নিরাপত্তা ও সহায়ক ব্যবসায়িক কার্যক্রম নিশ্চিত করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। বর্তমানে চট্টগ্রামে প্রায় ৫০টির বেশি কোরিয়ান কম্পানি ও তিন শতাধিক কোরিয়ান বসবাস করছেন।

পরদিন ১৭ই অক্টোবর, কোরিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (কেবিসিসিআই) এবং চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (সিসিসিআই) সহযোগিতায় কোরিয়া-বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে প্রথম গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে। এই বৈঠকটি ছিল কোরিয়ান দূতের বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর সফরের একটি উজ্জ্বলতম অংশ। বাংলাদেশের অর্থনীতির ব্যাপারে চট্টগ্রামের গুরুত্ব এবং দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধিতে উদ্যোক্তাদের ভূমিকার ওপর জোর দিয়ে, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ওপর দৃষ্টিপাত করেন তিনি।

কোরিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিষয়ে রাষ্ট্রদূত লি বলেন, কোরিয়া এবং বাংলাদেশের মধ্যে রেডিমেড গার্মেন্টস (RMG) শিল্প  ছাড়াও আরো অনেক ক্ষেত্রে আছে অর্থনৈতিক সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করার। উভয় দেশের সরকারি সংস্থার ও বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী নেতা বৈঠকে অংশ নিয়েছেন।

সফরকালে রাষ্ট্রদূত লি চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর এবং চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের কমিশনার ফখরুল আলমের সঙ্গেও বৈঠক করেন। তিনি কোরিয়ানদের চট্টগ্রামে বসবাস ও ব্যবসায় সহযোগিতার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং কোরিয়ানদের নিরাপত্তা এবং ব্যবসার জন্য অব্যাহত সহায়তার অনুরোধ জানান।

আজ ১৮ই অক্টোবর, রাষ্ট্রদূত লি ২০১৩ সালে কোরিয়ার উন্নয়ন সংস্থা কেওআইসিএ (KOICA)-এর মাধ্যমে কোরিয়ান সরকারের অনুদানের সহায়তায় চালু হওয়া বাংলাদেশ-কোরিয়া টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (BKTTC) পরিদর্শন করেন। এ প্রকল্পের খরচ ছিল ৪.৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি কাজের দক্ষতার প্রয়োজনে শহরে বিভিন্ন ধরনের কাজের পেশাগত প্রশিক্ষণ প্রদান করে আসছে। এছাড়াও কোরিয়ার সহায়তায় ২০২৩ সালের মধ্যে স্থাপিত হতে যাওয়া চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন রাষ্ট্রদূত লি।

এছাড়া ১৮ই অক্টোবর অ্যাম্বাসেডর লি কেইপিজেডে অনুষ্ঠিত কেবিসিসিআই -এর বোর্ড সভায় পর্যবেক্ষক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা