kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

ছেলের প্রাণ বাঁচানোই এখন মনিরের একমাত্র লড়াই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ অক্টোবর, ২০২১ ১৪:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ছেলের প্রাণ বাঁচানোই এখন মনিরের একমাত্র লড়াই

মাত্র ১৩ বছরের বিশাল শেখ। গরিব বাবা-মায়ের ঘরে জন্ম নিলেও আদরের কমতি ছিল না তার। তাই সংসারে চরম অভাব থাকলেও ছেলেকে কাজ করতে দেননি বাবা মনির শেখ। ছেলেকে বড় মানুষ করার স্বপ্ন নিয়ে ভর্তি করিয়েছেন স্কুলে। কিন্তু অল্প কদিনেই ভেঙে যেতে বসেছে মনির শেখের সেই স্বপ্ন। পড়াশোনা তো দূরে থাক, ছেলের প্রাণ বাঁচানোই এখন মনির শেখের জীবনের একমাত্র লড়াই। সারা দিন মাঠে-ঘাটে দৌড়ে বেড়ানো বিশালের ঠিকানা এখন হাসপাতালের বিছানা। 

রাজধানীর পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি আছে বিশাল শেখ। লিভার, প্যানক্রিয়েটিক ও বিলিয়ারি সার্জন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মোহছিন চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন। তার বাড়ি নওগাঁর আত্রাই উপজেলার ভোঁপাড়া ইউনিয়নের তিলাবদুরী গ্রামে। ভোঁপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণিতে পড়ে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হেপাটোবিলিয়ারি সিস্টেমের সমস্যায় আক্রান্ত বিশাল। দ্রুত অপারেশন না করালে হেপাটোবিলিয়ারি ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার  আশঙ্কা রয়েছে তার।

বাবা মনির শেখ বলেন, মাস দুয়েক আগে ফুটবল খেলতে গিয়ে বিশালের বুকে বলের আঘাত লাগে। এর পর থেকেই নিয়মিত বুকের ব্যথার কথা বলতে থাকে সে। সে সময় গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে তিনি কিছু ওষুধ দেন। এরপর ব্যথা না কমে দিনদিন বাড়তে থাকে। পরে আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখান থেকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা বিশালকে রাজশাহী কিংবা ঢাকা নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে বিশালকে সিরাজগঞ্জের খাজা ইউনুস আলী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল নিয়ে গেলে তার লিভারে সমস্যা বলে জানান চিকিৎসকরা। এরপর তাদের পরামর্শে ঢাকায় আসি। এখন চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দ্রুত অপারেশন না করালে বিশালের ক্যান্সার হয়ে যেতে পারে। তখন তাকে বাঁচানো আরো কঠিন হয়ে যাবে। কিন্তু অপারেশন করতে ৪ লাখ টাকার বেশি লাগবে।

চার লাখের মধ্যে সামান্য জমি বন্ধক দিয়ে ১ লাখ টাকা পেয়েছেন মনির। এ ছাড়া আশপাশের মানুষের সহায়তায় আরো ১ লাখ টাকা জোগাড় হয়েছে। কিন্তু বাকি টাকা জোগাড়ের কোনো উপায় নেই তার। তাই দেশের বিত্তবানদের কাছে তার ছেলের জীবন বাঁচাতে সাহায্য চান।

বিশালের মা তিথি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘হামরা গরিব মানুষ, তিনবেলার খাওনই জোগাড় করতে পারি না। এখন এত ট্যাকা কুনটে পামু! আপনারা হামার ছোলের (সন্তানের) জীবনটা বাঁচান।’

বিশাল শেখের অপারেশনের জন্য ০১৩১৫৫৮৪৩২২ (মনির শেখ) বিকাশ নাম্বারে সাহায্য পাঠানো যাবে।



সাতদিনের সেরা