kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৯ জুলাই ২০২১। ১৮ জিলহজ ১৪৪২

বিআরটিএর প্রতি আস্থা বাড়ছে, জানালেন চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ

এক বছরে ১০ সাফল্য

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ জুলাই, ২০২১ ১৮:২৪ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিআরটিএর প্রতি আস্থা বাড়ছে, জানালেন চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ

বিআরটিএ চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার বলেছেন, ‘চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করে গত এক বছরে প্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতি দূরসহ সুশৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনেছেন। শনিবার নিজ কার্যালয়ে গণমাধ্যমকে তিনি এ কথা বলেন। তিনি জানান, প্রতিষ্ঠানটিকে আরো উন্নত করতে এরই মধ্যে কিছু উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হয়েছে; আরো নানা পরিকল্পনা বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। গত বছরের ২৫ জুন থেকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

মোটা দাগে ১০টি সাফল্য এসেছে উল্লেখ করে তিনি জানান, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে নানা প্রতিকূল পরিবেশেও তিনি তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তিনি জানান, বিআরটিএর অভিলক্ষ্য হচ্ছে-আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার, সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে অংশীজনের সচেতনতা বৃদ্ধি, যুগোপযোগী সড়ক পরিবহন আইন প্রণয়ন ও প্রয়োগের মাধ্যমে ডিজিটাল, টেকসই, নিরাপদ, সুশৃঙ্খল এবং পরিবেশ বান্ধব আধুনিক সড়ক পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলা।

গত এক বছরের সাফল্য হিসেবে তিনি বলেন, ‘গাড়ির ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে যে সার্কেল অফিস থেকে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়, সেখান থেকেই লাইসেন্স গ্রহণ ও নবায়ন করতে হয়। গ্রাহকের সুবিধার্থে নিয়মটি শিথিল করা হচ্ছে। যে কেউ যেকোনো সার্কেল অফিস থেকে যাতে ড্রাইভিং লাইসেন্স রিনিউ করতে পারে; তার কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য পরীক্ষার পর ফলাফল প্রকাশে আগে বেশ কয়েকদিন বিলম্ব হতো। বর্তমানে পরীক্ষার পর সঙ্গে সঙ্গেই রেজাল্ট ঘোষণা করা হচ্ছে।’

বিআরটিএ চেয়ারম্যান জানান, অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের ক্ষেত্রে কম্পিউটারে থাকা প্রশ্ন ব্যাংক থেকে পরীক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ফলে পরীক্ষার্থীরা সঙ্গে সঙ্গে ফলাফল জানতে পারবেন। এরপর হাতে-কলমে চূড়ান্ত ফিল্ড পরীক্ষার ক্ষেত্রেও একটি অফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের অ্যাপস ব্যবহার করা হবে। এক্ষেত্রেও সঙ্গে সঙ্গে ফলাফল জানা যাবে। এরপর ওই দিনই পরীক্ষা কেন্দ্রে বায়োমেট্রিকসহ ছবি নেওয়া হবে, যাতে লাইসেন্স পেতে বারবার বিআরটিএতে আসতে না হয়। এরপর তার ভিত্তিতে গ্রাহকগণ লাইসেন্স গ্রহণ করতে পারবেন।’

নুর মোহাম্মদ মজুমদার  জানান, আগে যেখানে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন হতো সেখানেই ফিটনেসের জন্য গাড়ি হাজির করা লাগতো। এখন যে কোনো সার্কেল থেকেই ফিটনেস প্রদান করা হচ্ছে। গাড়ির মালিকানা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে বর্তমানে মালিকানা সংক্রান্ত নথি খুঁজে পেতে সমস্যা হয়। তাই আর্কাইভিংয়ের মাধ্যমে কাগজপত্রের ডিজিটাল ডাটাবেজ করা হচ্ছে, তাতে খুব সহজেই সব তথ্য পাওয়া যাবে।

পর্যায়ক্রমে ৬৪ জেলায় বিআরটিএর অফিস কাম মাল্টিপল ট্রেনিং সেন্টার করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রথম ধাপে ৫টি জেলায় এই সেবা মিলবে। সেগুলো হচ্ছে- ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, নোয়াখালী, রাঙামাটি ও ফরিদপুর।’ ঢাকার বাইরেও বাস ও ট্রাকসহ সকল বাণিজ্যিক গাড়ির ইকনোমিক লাইফ নির্ধারণের জন্য বিআরটিএ কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

বর্তমানে বিআরটিএতে অনেক লোকবল সঙ্কট আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘শূন্যপদে ২০ জন তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি ৩১৫টি পদে কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের সম্মতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া গেছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর শিগগিরই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে।’ তিনি দাবি করেন, ‘আগে বিআরটিএতে বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতি ও দালালদের দৌরাত্ম থাকলেও বর্তমানে ডিজিটালাইজেশনের ফলে তা ক্রমশ বন্ধ হয়ে আসছে।’ তিনি জানান, ঢাকা সিটির তিনটি সার্কেলে তিনজন ম্যাজিস্ট্রেটকে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব প্রদান করেছেন। এক বছরেই বহু বড় বড় দালালসহ অনেক দালালকে জেলে পাঠিয়েছেন। বিআরটিএ একটি সুশৃঙ্খল প্রতিষ্ঠানে রূপ পাওয়ায় সেবাপ্রত্যাশীদের আস্থা বাড়ছে বলেও মনে করেন বিআরটিএ চেয়ারম্যান। তিনি এ ব্যাপারে গ্রাহকদের দুর্নীতিবিরোধী মনোভাব প্রদর্শনের জন্য আহ্বান জানান। 

বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের ১০ম ব্যাচের কর্মকর্তা নুর মোহাম্মদ মজুমদার এর আগে জেলা প্রশাসক হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়াও তিনি  বিআরটিএর পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট), সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে   দায়িত্ব পালন করেন। তার জন্ম ফেনীর পরশুরাম উপজেলার উত্তর শালধর গ্রামে।



সাতদিনের সেরা