kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

করোনায় জনপ্রিয় মাস্ক পরে চুমু : হচ্ছে জীবাণু বিনিময়!

অনলাইন ডেস্ক   

১১ মে, ২০২১ ১৬:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনায় জনপ্রিয় মাস্ক পরে চুমু : হচ্ছে জীবাণু বিনিময়!

প্রেমের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে মাস্ক! এই করোনা কালে প্রেমিক বা প্রেমিকাকে ইচ্ছে করলেই আর চুমু দেওয়া যাচ্ছে না। কিন্তু অনেককে করোনা ভাইরাসও দমিয়ে রাখতে পারছে না। মাস্কের উপর দিয়েই আদর করছেন তারা। এই তালিকায় রয়েছেন জাস্টিন বিবার, এমনকি কমলা হ্যারিসও! কিন্তু এই ‘মাস্ক-চুমু’ আসলে নিরাপদ কি?

‘পিডিএ’ বা ‘পাবলিক ডিসপ্লে অব অ্যাফেকশন’। সোজা কথায় লোকচক্ষুর তোয়াক্কা না করে, সবার সামনেই প্রেম প্রদর্শন। কিছু দেশে এ নিয়ে আইনি বিধি-নিষেধ থাকলেও ইউরোপ বা আমেরিকায় এসব নিয়ে অত বিধি-নিষেধ নেই। তাই সেখানে সবার সামনে ঠোঁটে ঠোঁট রাখাটা বড় কোনো ঘটনা নয়। কিন্তু মাস্ক পরে এই কাজ করা মুশকিল। আবার সংক্রমণের ভয়ে মাস্ক খোলাও মুশকিল। ফলে মাস্কের ওপর দিয়েই অবাধে চলছে আদর। ২৭ বছরের জাস্টিন বিবার যেমন সবার সামনে স্ত্রী হেইলে-কে এভাবে আদর করে ফেললেন। রোড আইল্যান্ড যাওয়ার জন্য বিমানে ওঠার আগে আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসও একইভাবে মাস্ক-চুম্বনে আবদ্ধ হলেন স্বামীর সঙ্গে। আর এগুলো দেখে সাধারণ মানুষ আরো একটু ভরসা পেয়ে গেল। ওঁরা যদি পারেন, আমরাই বা নয় কেন? নেটমাধ্যম ভরে উঠল এই মাস্ক-চুমুর ছবিতে।

তবে মহামারির এ সময়ে এই মাস্ক চুমু কতটা নিরাপদ? চিকিৎসকরা কিন্তু এ কাজকে একদম সমর্থন করছেন না। তাঁদের কথায়, মাস্ক পরার উদ্দেশ্য হলো জীবাণুদের মুখের বাইরে আটকে রাখা। মানে, মাস্কের বাইরের দিকে। সেখানে কোনো ভাইরাস, কোনো ব্যাকটেরিয়া আটকে আছে কি না, তা আমরা জানি না। কিন্তু মাস্ক পরে চুমুর সময় শুধু আদরবিনিময় হচ্ছে না। মাস্কের বাইরে আটকে থাকা জীবাণুর বিনিময়ও ভালো পরিমাণে হচ্ছে। তার চেয়েও বড় কথা, আপনি মাস্ক পরে যাঁকে চুম্বন করছেন, তার মাস্কে হয়তো বিপজ্জনক কোনো জীবাণু ছিলই না। উল্টো আপনি তাঁকে খানিকটা বিপদ দিয়ে এলেন! ফলে মহামারির সময় খোলামেলা আদর দেখাতে যতই ইচ্ছে করুক না কেন, তা এড়িয়ে যাওয়াই ভালো বলে মত বিজ্ঞানীদের।

সূত্র : আনন্দবাজার।



সাতদিনের সেরা