kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ বৈশাখ ১৪২৮। ২২ এপ্রিল ২০২১। ৯ রমজান ১৪৪২

নুজাইরার হাতে রঙিন হলো বর্ণমালার দিন

মাহতাব হোসেন   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নুজাইরার হাতে রঙিন হলো বর্ণমালার দিন

ছোট্ট নুজাইরা-

একমনে এঁকে যাচ্ছে নুজাইরা। এঁকে যাওয়া বলয়ে ভুল হবে। আল্পনার ফাঁকে ফাঁকে কোথায় রঙ চড়াতে হবে সেটা বুঝে গেছে আড়াই বছরের সামান্য বেশি বয়সের নুজাইরা। একটা আল্পনার বৃত্তের ভেতরে রঙ করা হয়ে গেলে উঠে গিয়ে আরেকটা নকশার কাছে গিয়ে বসে পড়ে, সেখানে রঙ করা শুরু করে দেয়। 

খুদে নুজাইরা এসেছিল বর্ণমালা উৎসবে। আর এসে নেমে পড়েছিল মায়ের কোল থেকে। তারপরেই নেমে তুলি আর রঙের কৌটা নিয়ে। ক্লান্ত হবার আগ পর্যন্ত নুজাইরা বর্ণমালা গুলোকে রঙিন করে যাওয়ার চেষ্টা করে গেছে। ছোট হাতের ছোঁয়ায় বর্ণমালা যেন দ্যুতি ছড়াচ্ছিল।

ভাষা দিবসের সকাল থেকেই বর্ণমালা উৎসব চলছে পূর্বাচলের জয়বাংলা চত্বরে। সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত এই উৎসব চলতেই থাকবে। উৎসবে যেমন কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন অংশ নিয়েছেন, তেমনই দেশজের নামী-গুণী ব্যক্তিরাও উপস্থিত হয়েছেন। শিশুদের কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠেছে পুরো চত্বর। 

এ বছরের ২১ ফেব্রুয়ারিকে কেন্দ্র করে পূর্বাচল নতুন শহর জয় বাংলা চত্বরে ইকরিমিকরি নির্মাণ করছে একটি শহীদ মিনার। একুশের প্রথম প্রহরে সর্বসাধারণের জন্য এটি খুলে দেওয়া হয়েছে।

এমএস সিটে তৈরি এই শহীদ মিনার উচ্চতায় ৩১ ফুট ও প্রশস্তে ২১ ফুট। ইকরিমিকরি মনে করে, প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত প্রিয় বর্ণমালাকে অনেক আদরে যতনে লালন করা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর অন্যতম উপায়। শহীদ মিনার নির্মাণের পরিকল্পনা বিষয়ে জানতে চাইলে ইকরিমিকরি জানায়, আমরা চাই শিশুরা মাতৃভাষাকে আরো ভালো করে জানুক। হৃদয়ে ধারণ করুক। শিশুদের জন্যই এমন আয়োজন।

এই প্রকাশনা সংস্থা আরো জানায়, প্রতিবছর সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে নিয়মিতভাবে বর্ণ উৎসব আয়োজিত হবে। এটি হবে সার্বজনীন। এ ছাড়া চলবে সারা বছর ধরে বর্ণমালাকে ঘিরে গবেষণাসহ নানা ধরনের চর্চা ও কার্যক্রম এবং সেসব ফেব্রুয়ারি মাসে তা উপস্থাপন করা হবে। যারা বাংলা ভাষা ও বর্ণমালা নিয়ে কাজ করতে চান, এ উদ্যোগের পাশে থাকতে চান, তাদের সকলকে আমন্ত্রণ জানায় ইকরিমিকরি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা