kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭। ৪ মার্চ ২০২১। ১৯ রজব ১৪৪২

ডেনিশ কার্টুনে ভয়াবহ আপত্তিকর এক চরিত্র!

অনলাইন ডেস্ক   

৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ডেনিশ কার্টুনে ভয়াবহ আপত্তিকর এক চরিত্র!

ছবি: ভিডিও থেকে নেওয়া।

জন ডিলারম্যান্ডের একটি অসাধারণ পুরুষাঙ্গ রয়েছে। এটা এতোটাই অসাধারণ যে এটি দিয়ে উদ্ধার কাজও পরিচালনা করা যায়। শুধু তাই নয়; এটি দিয়ে পতাকা উত্তোলন থেকে শুরু করে বাচ্চাদের কাছ থেকে আইসক্রিমও চুরি করে নেওয়া যায়। 

ডেনিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন ‘ডিআর’ একটি ‘অ্যানিমেটেড সিরিজ’ নিয়ে এসেছে। এটি শুধু চার থেকে আট বছরের শিশুদের জন্য। সেখানেই দেখা মিলে এমন চরিত্রের। জন ডিলারম্যান্ড নামক ওই চরিত্রের রয়েছে বিশাল পুরুষাঙ্গ। এটি দিয়ে সে নানা ধরনের সমস্যা সামধান করে। তবে এই সিরিজ নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। 

শনিবার থেকে এই ভিডিওটি সম্প্রচার শুরুর পর নানা ধরনের মন্তব্য আসা শুরু করেছে। শুরু হয়েছে বিতর্কও। ডেনিশ লেখক অ্যান লিস মার্সট্রান্ড-জর্জেনসেন লেখেছেন, আমরা যখন মিটু আন্দোলনের মাঝমাঝিতে; তখন এমন একটি চরিত্র শিশুদের হাতে তুলে দিয়ে কেমন বার্তা দিচ্ছি আমরা? 

রোসকিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক এবং জেন্ডার গবেষক ক্রিশ্চান গ্রোস জানান, তিনি বিশ্বাস করেন, এটি পুরুষতান্ত্রিক সমাজের আদর্শ ধারণাটিকে স্থায়ী করে। তার মতে, ‘লকার রুম সংস্কৃতি’কে স্বাভাবিক করছে এই ধরনের প্রোগ্রাম। এটি মজার। তাই এটিকে ক্ষতিক্ষর নয় বলে ভাবা যায়। কিন্তু বিষয়টি এমন নয় এবং আমরা আমাদের বাচ্চাদের এই শিক্ষা দিচ্ছি। 

এরলা হাইনসেন হেজস্টেড একজন ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট। তিনি শিশুদের নিয়ে কাজ করেন। তিনি জানান, তিনি বিশ্বাস করেন প্রোগ্রামটির বিরোধীরা এই বিষয়টিকে নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে পারে। তার মতে, জন ডিলারম্যান্ড শিশুদের সঙ্গে কথা বলে এবং তাদের চিন্তাভাবনাগুলো শেয়ার করে। আর শিশুরা যৌনাঙ্গের বিষয়টিকে মজাদার বলে মনে করে। 

হাইনসেন হেজস্টেড বলেন, শোতে এমন একজন ব্যক্তিকে চিত্রিত করা হয়েছে যে কিনা আবেগপ্রবণ এবং সব সময় নিজেকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে না। সে ভুল করে, যেমনটি ভুল করে শিশুরা। কিন্তু ডিলারম্যান্ড সবকিছুকে সঠিক করে তুলে। সে তার কর্মের জন্য দায় নিজের ঘাড়েই নেয়। শোতে কোনো নারী যখন তাকে বলে যে তার লিঙ্গটি প্যান্টের ভেতরে রাখা উচিত, ডিলারমান্ড তাখন বিশেষ অঙ্গটি প্যান্টে গুটিয়ে নেয়। হেজস্টেড বলেন, ডিলারমান্ড চরিত্রে এই বিষয়টি সুন্দর। এই আচরণ পুরুষের দায়িত্ববোধেরও পরিচয় দেয়।  

ডেনিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন ‘ডিআর’ এই ধরনের সমালোচনার জাবাব দিয়েছে। তাদের মতে, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো শিশুরা জন ডিলারম্যান্ড শোটি উপভোগ করছে। 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা