kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

লন্ডন বাংলা বইমেলা ও সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ অক্টোবর, ২০২০ ১৭:৪৯ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



লন্ডন বাংলা বইমেলা ও সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত

সি.ই.এন-এর আয়োজনে এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যুক্তরাজ্যের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হয়েছে “পাঁচদিনব্যাপী ভার্চুয়াল লন্ডন বাংলা বইমেলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব”। ৯ থেকে ১৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত এবারের বইমেলা ছিল লন্ডনে বইমেলা প্রতিষ্ঠার ১১তম আয়োজন। ২০১০ সালে এই বইমেলা যাত্রা শুরু করে। এবারের বইমেলার আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান। সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন সি.ই.এন- এর সিইও এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি গোলাম মোস্তফা।

বইমেলা উৎসর্গ করা হয় বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে ছিল উদ্বোধনী অধিবেশন, শিশু-কিশোরউৎসব, লেখক প্রকাশক আলাপচারিতা, বিভিন্ন সেমিনার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিবেদিত কবিতা পাঠ, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন লন্ডন, ইউরোপসহ পৃথিবীর নানা দেশ থেকে লেখক, কবি, শিল্পী। মেলার ওয়েব সাইটে প্রদর্শন করা হয় অংশগ্রহণকারী ১৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের বই ও বইয়ের তথ্য। আয়োজক সংগঠনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সব তথ্য জানানো হয়েছে।

৯ অক্টোবর পাঁচ দিনব্যাপী ভার্চুয়াল বইমেলার উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগ দেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। উদ্বোধন করেন মুজিববর্ষ জাতীয় উদ্যাপন বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কবি কামাল চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সৈয়দ বদরুল আহসান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন প্রকাশক খন্দকার সোহেল। বইমেলার  ঘোষণাপাঠ করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক ড. সুপ্রিয় রায়, সভাপতিত্ব করেন গোলাম মোস্তফা।

উদ্বোধনী অধিবেশনের পর বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় ‘বঙ্গবন্ধু মৃত্যুঞ্জয়ী মহামানব’ শীর্ষক আলোচনা সভা। এতে আলোচনা করেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন এবং বৃটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত সাইদা মুনাতাসনীম। ‘কবিতায় বঙ্গবন্ধু’ অনুষ্ঠানে স্বরচিত কবিতা পাঠক রেন কবি কামাল চৌধুরী ও কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী। পরিচালনা করেন কবি সিহাব শাহরিয়ার। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশ থেকে শিল্পী মিতা হক, শিল্পী সাজেদ আকবর, যুক্তরাজ্য থেকে শিল্পী হিমাংসু গোস্বামী।

বইমেলার ২য় দিন ছিল শিশু-কিশোর উৎসব। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রকাশনা, একটি আলোচনা। নতুন বই লেখক, প্রকাশক আলোচনা, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নিবেদিত কবিতা ও সঙ্গীতানুষ্ঠান। প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। মূল আলোচনার বিষয়- ‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে দেশ- বিদেশে প্রকাশনা’।  আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ঢাকার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, জার্মানী থেকে লেখক ড. গোলাম আবু জাকারিয়া, যুক্তরাষ্ট্র থেকে লেখক আনিস আহমেদ। আলোচনার পরে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা পাঠে অংশগ্রহণ করেন কবি মিনার মনসুর, আনিসুল হক, খালিদ হোসেন। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করেন মহান মুক্তিযুদ্ধের কণ্ঠশিল্পী শাহীন সামাদ ও যুক্তরাজ্য থেকে শিল্পী ফজলুল বারী বাবু।

লন্ডন বাংলা বইমেলার ৩য় দিন- যুক্তরাজ্যের লেখক সালেহা চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় প্রবাসে বাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতি চর্চা বিষয়ক সেমিনার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন সৈয়দ বদরুল আহসান, জার্মানী থেকে লেখক নাজমুন্নেসা পিয়ারী এবং অষ্ট্রিয়া থেকে লেখক এম. নজরুল ইসলাম এবং নিউইয়র্ক থেকে ড. জিয়া উদ্দীন আহমেদ। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ থেকে বিশিষ্ট আবৃত্তিকার আহকাম উল্লাহ ও নায়লা তাবাস্সুম কাকলী, লন্ডন থেকে ড. সুপ্রিয় রায়, সুমনা ভট্টাচার্য্য এবং ফ্রান্স থেকে রবি সঙ্কর মৈত্রী। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট লালনগীতি শিল্পী ফরিদা পারভিন এবং বাঁশিতে ছিলেন গাজী আব্দুল হাকিম।
৪র্থ দিনের প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল। অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন শিক্ষা মন্ত্রী ড. দীপু মনি এবং সভাপতিত্ব করেন জার্মান প্রবাসী লেখক নাজমুননেসা পিয়ারী। বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক শীর্ষক আলোচনায় প্রধান আলোচক হিসাবে অংশ নেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এম এম আকাশ, সুইডেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ড. ফরহাদ আলী খান এবং জার্মান চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আনোয়ারুল কবির। ‘বাংলাদেশে প্রকাশনা শিল্প সমস্যা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কবি মিনার মনসুর, বিশ্বজিত সাহা, ও প্রকাশক আবুল বাসার ফিরোজ।

বইমেলার ৪র্থ দিনের অনুষ্ঠানে আরো ছিল কবিতা অনুষ্ঠান। এতে অংশগ্রহণ করেন বৃটেনের কবি প্রিসিলিয়া জোসেপ, মীর মাহফুজ এবং ফুলনাহার বেগম। শেষ পর্বে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী শ্যমল চৌধুরী, বাংলাদেশ এবং নৃত্যে ছিলেন অনুশ্মিতা সাহা, যুক্তরাজ্য।

লন্ডন বই মেলার সমাপনী দিবসের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলা একাডেমির সভাপতি শামসুজ্জামান খান। উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ বদরুল আরেফিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি নির্মলেন্দু গুণ। ‘প্রবাসে বইমেলা ও অভিবাসীদের অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক, ড. রফিকুল্লাহ খান, যুক্তরাজ্যের সংস্কৃতিকর্মী ফারুক এইচ. খান। সভাপতিত্ব করেন জার্মান প্রবাসী বিজ্ঞানী ও লেখক ড. গোলাম আবু জাকারিয়া। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন কবি নির্মলেন্দু গুণ, কথাসাহিত্যিক ও কবি আনিসুল হক, কবি বিমল গুহ ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কবি শামস্ আল মমিন। স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কবি শিহাব শাহরিয়ার। সমাপনী দিবসের সর্বশেষ অনুষ্ঠান ছিল বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কনসার্ট। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী তপন চৌধুরী (বাংলাদেশ), শিল্পী গৌরী চৌধুরী, (ইউ.কে), শ্রমণা গুহ ঠাকুর, কলকাতা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা