kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

একের পর এক কুড়ালের কোপে নিজের কন্যাকে খুন করলেন বাবা!

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৭:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একের পর এক কুড়ালের কোপে নিজের কন্যাকে খুন করলেন বাবা!

প্রতীকী ছবি।

প্রেমিকের বাড়িতে যাওয়ায় নিজের ১৮ বছর বয়সী কন্যাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে খুন করলেন বাবা। নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশে।

বুধবার সকালে উত্তরপ্রদেশের কানপুর দেহাত জেলার গাজনের থানা এলাকার খানপান্না গ্রামে ঘটে এই ভয়ানক ঘটনা। পুলিশ অভিযুক্ত বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাতে বাড়ি থেকে পালিয়ে ২০ বছরের প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে ওঠে ওই তরুণী। গ্রামেই একটি দোকান চালান ওই ছেলেটি। তিনি ও তাঁর বাবা মেয়েটির বাবাকে খবর দেন। বলেন, মেয়েটি সেখানেই থাকতে চাইছে। এতেই তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে হাতে একটা কুড়াল নিয়ে বেরিয়ে পড়েন তরুণীর বাবা। তার সঙ্গে ছেলেটির বাড়িতে যায় তার গোটা পরিবার।

সেখানে গিয়ে মেয়েকে বাড়ি ফিরতে বললে, সে ফিরতে অস্বীকার করে। শুরু হয় বাক-বিতণ্ডা। তাতেই বেজায় ক্ষেপে যান তিনি। রাগে অগ্নিশর্মা হয়ে কুড়াল দিয়ে নিজের মেয়ের ওপর হামলা চালান। একের পর এক কোপ মারতে থাকে মেয়েকে। যন্ত্রণায় কাঁপতে কাঁপতে ঘটনাস্থলেই নিথর হয়ে যায় মেয়েটি। চারিদিক রক্তে ভেসে যেতে থাকে।

মেয়েটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করতে গিয়ে কয়েকটা কোপ তার প্রেমিকের গায়েও লাগে। তিনি আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তাঁর অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলে জানা গেছে। নৃশংস এই ঘটনা যখন ঘটে, তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন আরো অনেকে। তবে ভয়ে কেউ সামনে অগ্রসর হননি। স্থানীয়দের থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ।

রামপুর দেহাতের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অনুপ কুমার জানান, 'এটা অনারকিলিং-এর ঘটনা। মেয়েটির বাবাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে কুড়ালটি। ঘটনাস্থল পরীক্ষা-নীরিক্ষা করছে ফরেনসিক দল। গ্রামবাসীদের বক্তব্য রেকর্ড করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।'

সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা