kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৩ আগস্ট ২০২০ । ২২ জিলহজ ১৪৪১

বিশ্বের সমকালীন কবিদের ভালোবাসার কবিতায় নতুন শুরু গ্রন্থীর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ জুন, ২০২০ ২১:৩৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিশ্বের সমকালীন কবিদের ভালোবাসার কবিতায় নতুন শুরু গ্রন্থীর

কবিতা দিয়ে বিশ্বব্যাপী ভালোবাসা ও মানবতার বাণী ছড়িয়ে দিতে ব্রিটেনে দক্ষিণ এশীয় সাহিত্য, দর্শন ও সমাজতত্ত্বের ছোট কাগজ গ্রন্থীর ফেসবুক লাইভ সিরিজ ‘হানড্রেড পোয়েটস্ অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ফর লাভ’ শীর্ষক আয়োজনের প্রথম পর্ব সম্প্রচারিত হয় গতকাল শনিবার।

গ্রন্থীর ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সম্প্রচারিত এ অনুষ্ঠানে স্বরচিত কবিতা পাঠ এবং আলোচনায় অংশ নেন সমকালীন বাংলা সাহিত্যের অ‍ন্যতম প্রধান কবি, প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য-সমালোচক জহর সেনমজুমদার, কবি ও সাংবাদিক জুয়েল মাজহার, কবি শামীম রেজা, ব্রিটেনের মূলধারার কবি শারেনা লি সাত্তি এবং ইক‍ুয়েডরের কবি থোয়ান হোসে রোদিনাস।

ব্রিটেনে ভারতীয় মার্গ সংগীতের শীর্ষ সংস্থা সৌধ ও বাংলা লোকগানের সংগঠন রাধারমণ সোসাইটির সার্বিক সহযোগিতায় সূচিত এ অভিনব উদ্যোগের সঞ্চালনায় ছিলেন কবি টিএম আহমেদ কায়সার। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গ্রন্থী সম্পাদক কবি শামীম শাহান।

গ্রন্থী সম্পাদক শামীম শাহান বলেন, গ্রন্থী গত তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে বাংলা সাহিত্য, কবিতা ও সমাজতত্ত্বের বিকাশে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। ৯০ এর দশকে বাংলাদেশ থেকে গ্রন্থীর যাত্রা শুরু হলেও আজ বিশ্বের সর্বত্র গ্রন্থীর পদচারণা। আমি শুরু থেকে আজ পর্যন্ত যারা গ্রন্থীর এই কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত আছেন তাদের সবার প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জ্ঞাপন করছি।

ইকুয়েডর থেকে যুক্ত হওয়া কবি থোয়ান হোসে রডিনাস স্প্যানিশ ভাষায় নিজের কবিতা ইংরেজি অনুবাদসহ পাঠ করেন। ব্রিটিশ কবি শারিনা লী বলেন, কবিতা তার ভালোবাসা। এ কারণেই জীবনের সঙ্গে, মানুষের সঙ্গে, প্রকৃতির সঙ্গে সেতুবন্ধন তৈরির মাধ্যম হিসেবে কবিতাকেই বেছে নিয়েছেন তিনি। তিনি নিজের লেখা 'উইথ ইউ' এবং 'লেটস্ লিভ' পাঠ করে শোনান।

ভালোবাসা সম্পর্কে নিজের একান্ত ভাবনা প্রকাশ করতে গিয়ে কবি জুয়েল মাজহার বলেন, ভালোবাসা এমন এক শক্তি যা মানুষকে একীভূত করে। ভালোবাসা দিয়ে জয় করা যায়,  সৃষ্টি করা যায়। বিশ্বব্যাপী এই মহামারির সময়ে আমরা আমাদের ভালোবাসার শক্তি দিয়েই এই অচেনা শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী হতে পারি।

নিজের লেখা কবিতার সংকলন থেকে ‘দর্জিঘরে একরাত’ কবিতাটি ইংরেজি অনুবাদসহ পাঠ করেন তিনি। এছাড়াও তিনি রুবিকন কবিতাটি পাঠ করেন যা লাইভ স্ট্রিমে অংশগ্রহণকারী দর্শক শ্রোতারা অত্যন্ত সময়োপযোগী বলে উল্লেখ করেন।

কবি শামীম রেজার পরিবেশনায় ছিল ‘আমি এক সাগরে ভাষা কৃতদাস’ এবং এর ইংরেজি অনুবাদ। তিনি বলেন, কবিতা ভালো এবং খারাপ সব সময়েই আমাদের একান্ত ভাবনা ও ভালোবাসার সঙ্গী। এই ভাবনা মাথায় রেখে বিশ্বব্যাপী এই মহামারির সময়ে গ্রন্থীর এই উদ্যোগ সাধুবাদ জানাই।

ভালোবাসাকে সংজ্ঞায়িত করতে গিয়ে কবি জহর সেনমজুমদার বলেন ছোটবেলা থেকেই আমার ভালোবাসা শব্দটির জন্মস্থান দেখতে ইচ্ছে করেছে এবং একটা সময়ে এটাই মনে হয়েছে যে প্রবৃত্তি ও নিবৃত্তির মাঝখানে কোনো একটা নিঃশব্দ ক্ষতস্থান থেকেই সম্ভবত ভালোবাসা অঙ্কুরিত হয়। কবি জহর সেন পাঠ করেন ‘উড়ো পাখি’, ‘ভাঙা চাঁদ’ এবং ‘মেঘ’।

কবি টি এম আহমেদ কায়সার বলেন, সামাজিক দূরত্বের কারণে আমরা যখন ঘরে বসে আছি, সঙ্গ নিরোধের এই কঠিন সময়ে কবিতা আমাদের শুশ্রুষা ও মানসিক প্রশান্তি দিতে পারে। এ সময়ে একমাত্র কবিতাই পারে মানুষের সঙ্গে মানুষের মেলবন্ধন ঘটিয়ে দিতে- এটা পরীক্ষিত সত্য।

গ্রন্থীর এই ধারাবাহিক আয়োজন সম্পর্কে তিনি বলেন, গ্রন্থী দক্ষিণ এশীয় সাহিত্যের পাশাপাশি বিশ্ব সাহিত্য, দর্শন ও সমাজতত্ত্বের প্রচার ও প্রসারে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। এ পর্যন্ত যে সমস্ত কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, চলচ্চিত্র পরিচালক গ্রন্থীর ফেসবুক লাইভ সিরিজে অংশ নিয়েছেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। ‘হানড্রেড পোয়েটস্ অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ফর লাভ’ গ্রন্থীর একটি অভিনব উদ্যোগ যা বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সংস্কৃতির মানুষের সঙ্গে, সাহিত্যের সঙ্গে ভালোবাসার এক সুদৃঢ় সেতু রচনা করবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। অনুষ্ঠানের সহযোগী সঞ্চালনায় ছিলেন শাহীন মিতুলি।

‘হানড্রেড পোয়েটস্ অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ফর লাভ’ শীর্ষক ‘দ্য গ্রন্থী ফেসবুক লাইভ সিরিজ’ উদ্যোগটির দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ৪ জুলাই (শনিবার) বিকেল ৪টায় (ইউকে সময়)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা