kalerkantho

সোমবার  । ১৬ চৈত্র ১৪২৬। ৩০ মার্চ ২০২০। ৪ শাবান ১৪৪১

সবিশেষ

ভালোবাসা দিবসে ফুলের বদলে মাস্ক!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০৮:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভালোবাসা দিবসে ফুলের বদলে মাস্ক!

করোনাভাইরাস আতঙ্কে ভুগছে সারা বিশ্ব। হংকংয়ে ইতিমধ্যে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এখনো আক্রান্ত বেশ কয়েকজন। এর মধ্যেই বছর ঘুরে চলে এসেছে ভালোবাসা দিবস। সারা বিশ্বের মতোই হংকংয়ে এই দিনে লাখ লাখ টাকার ফুল বিক্রি হয়, কিন্তু এ বছর করোনাভাইরাস আতঙ্কে সেই বিক্রি নেমে এসেছে প্রায় অর্ধেকে। ফুলের বদলে এবার উপহারের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে ফেস মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার (হাত জীবাণুমক্ত করার ওষুধ), টয়লেট রোলসহ নানা স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী। 

স্থানীয় একটি ডেটিং অ্যাপের ক্রেতা জরিপে দেখা গেছে, বেশির ভাগ মানুষ প্রিয়জনদের কাছ থেকে এসব উপহারই আশা করছে।

রসিকতা করে বলা হচ্ছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে ফুলের তোড়া নয়, এক বাক্স মাস্কই ‘ভালোবাসি’ বলার শ্রেষ্ঠ উপায়।

হংকংয়ের মংকং এলাকার একটি ফুলের দোকানের শিল্প নির্দেশক আমান ফং। তিনি জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবারের অবস্থা খুব খারাপ। ভাইরাসের কারণে খুব কম মানুষই রাস্তায় বের হচ্ছে। ফলে বিক্রি ৪০ শতাংশের মতো কমে গেছে। এ ছাড়া হংকংয়ে ফুলের মূল চালানগুলো আসে চীন থেকে। করোনাভাইরাসের কারণে চীনা ফুল সরবরাহকারীদের অনেকেই ব্যবসা বন্ধ রেখেছেন। ফলে হংকংয়ের ব্যবসায়ীদের ফুল আনতে হয়েছে নেদারল্যান্ডস ও তাইওয়ান থেকে। সব মিলিয়ে এবার বেশ মন্দ সময় যাচ্ছে তাঁদের।

ঠিক উল্টো ঘটনা ঘটেছে ফেস মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, টয়লেট রোলসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রীর ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে। ফুলের দোকানের সামনে মানুষের ভিড় না থাকলেও ফার্মেসি ও স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রীর দোকানগুলোর সামনে দেখা গেছে দীর্ঘ লাইন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও ভরে গেছে মাস্ক, চাল, টয়লেট রোল ইত্যাদি দিয়ে তৈরি তোড়ার ছবিতে। ফুলের বদলে এ ভিন্ন রকম তোড়া একদিকে যেমন হাসির খোরাক জোগাচ্ছে, অন্যদিকে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা মনে করিয়ে দিচ্ছে।

ভালোবাসা দিবসে করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে সুরক্ষা দিতে হংকংয়ের সিনেমা হলগুলোও বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে। এক সারি ব্যবধান রেখে বিক্রি করা হচ্ছে সিনেমার টিকিট। ক্রেতা টানতে বড় টেবিলের বদলে প্লাস্টিকের দেয়াল দিয়ে আলাদা করা টেবিলে খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে রেস্টুরেন্টগুলো। 

সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা