kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

মদ বিক্রির সঙ্গে দেহব্যবসা, দোকানে ভাঙচুর চালিয়েছে জনতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১১:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মদ বিক্রির সঙ্গে দেহব্যবসা, দোকানে ভাঙচুর চালিয়েছে জনতা

ভারত সসরকারের অনুমোদন নিয়ে মদের দোকান দিয়েছেন। সেই সঙ্গে যৌনকর্মীদের নিয়ে গিয়ে দেহব্যবসা করানোরও অভিযোগ রয়েছে। এদিকে দিনের পর দিন এলাকায় মদ্যপদের দৌরাত্ম্য বেড়ে যাওয়ার কারণে ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী মদের দোকানে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের ভগবানপুর থানার মুহাম্মদপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা বলছেন, বছর দুয়েক ধরে ভগবানপুর থানার মুহাম্মদপুর গ্রামে সরকারি অনুমোদনপ্রাপ্ত একটি মদের দোকান চলছে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, মদের দোকান থাকার জন্য এলাকায় মদ্যপদের উৎপাতে নারীরা রাস্তাঘাটে বের হতে ভয় পাচ্ছেন। বিশেষ করে রাতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তারা। 

স্কুলের ছাত্রছাত্রীরাও ওই দোকানের কাছ দিয়ে স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। স্থানীয় মানুষের আরো অভিযোগ, গত কয়েক মাস ধরে ওই মদের দোকানে মদ বিক্রির আড়ালে দিঘা-মন্দারমণি থেকে নারীদের নিয়ে এসে যৌন ব্যবসা চালাচ্ছেন দোকানের মালিক। 

গত বুধবার রাতে দোকানে দেহ ব্যবসা চালানো হচ্ছে, এমন খবর পেয়ে উত্তেজিত জনতা ওই মদের দোকান ঘেরাও করে। বৃহস্পতিবার সকালে এলাকার মানুষ দোকানে ভাঙচুর চালায় ও আসবাবপত্রে আগুন ধরিয়ে দেয়।

দোকানের মালিককেও মারধরের অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে ভগবানপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পুলিশ ভাঙচুরের ঘটনায় একজনকে আটক করেছে।

ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীদের দাবি, মদের দোকান থাকায় এলাকায় মদ্যপদের উৎপাতে নারীরা আতঙ্কে থাকেন। কয়েক মাস ধরে মদের দোকানের আড়ালে যৌন ব্যবসা চলছে। প্রশাসনকে এই দোকানের ব্যাপারে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে।

মদের দোকানের মালিক অবন্তী মান্নার দাবি, দোকানে কোনো যৌন ব্যবসা চলে না। একেবারেই মিথ্যা অভিযোগ তুলে গুজব এবং হিংসা ছড়ানো হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা