kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার (জেনারেল) পদের লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১১:৫৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার (জেনারেল) পদের লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি

বাংলাদেশ ব্যাংক ‘অফিসার (জেনারেল)’ পদের লিখিত পরীক্ষা হবে ২৪ জানুয়ারি (শুক্রবার) সকাল ১০টায়। এমসিকিউ পরীক্ষায় পাস করা প্রার্থীরাই লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। এমসিকিউ পরীক্ষার সময় পাওয়া প্রবেশপত্র দিয়েই লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে বিস্তারিত লিখেছেন পাঠান সোহাগ

মানবণ্টন ও বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি
বাংলাদেশ ব্যাংকের উপপরিচালক সোহেল নওরোজ জানান, লিখিত পরীক্ষায় মোট বরাদ্দ ২০০ নম্বর, সময় ২ ঘণ্টা। বাংলায় নির্ধারিত বিষয়বস্তুর ওপর ফোকাস রাইটিং কিংবা রচনায় ৩০ নম্বর আর ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদে ২৫ নম্বর থাকবে। আবেদনপত্র কিংবা চিঠি—এ দুটি থেকে যদি যেকোনো একটি প্রশ্নে থাকে তাহলে এর মান ১৫ থাকতে পারে। সে ক্ষেত্রে ক্রিয়েটিভ রাইটিংয়ে ৩০ নম্বর থাকবে না। ফোকাস রাইটিংয়ের বিষয়বস্তুগুলো সাধারণত সমসাময়িক বিষয়ের ওপর ভিত্তি করেই দেওয়া হয়। তবে এই বছর ‘মুজিব বর্ষ’ ঘোষণা করায় এ বিষয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে। এ ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কিত ১৯১৭ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন ঘটনা জানার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ যেকোনো বিষয়ে তথ্যসমৃদ্ধ লেখায় দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

ইংরেজি বিষয়ের বেলায়ও ঠিক এভাবে আবেদনপত্র অথবা চিঠি—যেকোনো একটি থাকতে পারে।

ইংরেজিতে ফোকাস রাইটিং অথবা রচনায় ৩০ নম্বর, বাংলা থেকে ইংরেজি অনুবাদ ২৫, ক্রিয়েটিভ রাইটিং ৩০, ইংরেজি প্যাসেজ থেকে প্রশ্নোত্তর ৩০ এবং গণিতে ৩০ নম্বর থাকবে। ইংরেজিতে ফ্রিহ্যান্ড লেখার দক্ষতা বাড়াতে হবে। এর জন্য বহুল ব্যবহৃত বা কমন ইংরেজি শব্দের সমার্থক শব্দগুলো আয়ত্ত করতে হবে, যাতে নতুন নতুন ইংরেজি বাক্য তৈরিতে দক্ষতার প্রমাণ দেওয়া যায়। ইংরেজির ফোকাস রাইটিং অথবা রচনার ক্ষেত্রে সাম্প্রতিক ঘটনা বা বিষয়াদিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

গণিতে ৩০ নম্বর। এ অংশে সাধারণত তিনটি গণিতের সমাধান করতে হয়। প্রতিটিতে ১০ নম্বর করে থাকে। পাটিগণিত, বীজগণিত ও জ্যামিতি থেকে প্রশ্ন আসে। গণিতের প্রশ্নগুলো ইংরেজিতে করা হবে। প্রশ্নের সঙ্গে কোনো বিকল্প অপশন থাকবে না।

গণিতে ভালো করার জন্য পাটিগণিতের কাজ ও সময়, দূরত্ব, স্রোত, গতি, বিন্যাস ও সমাবেশ—এ ধরনের অঙ্ক ভালোভাবে আয়ত্ত করতে হবে। জ্যামিতি ও পরিমিতি অংশের প্রস্তুতির জন্য নবম-দশম শ্রেণির গণিত পাঠ্য বই দেখলেই চলবে।

মূলত লিখিত পরীক্ষায় পাওয়া নম্বর চূড়ান্ত ফলাফল নির্ধারণে ভূমিকা রাখে।

লিখিত পরীক্ষায় পাস করার পর ২৫ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

সহায়ক বই
বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক (জেনারেল) যরিফা মোরশেদ জানান, অফিসার (জেনারেল) পদে লিখিত পরীক্ষার জন্য সহায়ক বই হিসেবে প্রফেসর’স প্রকাশনী, এমপিথ্রি, ওরাকলসহ বিভিন্ন সিরিজের লিখিত পরীক্ষার বইগুলো দেখতে পারেন।

এ ছাড়া বাংলা, ইংরেজি ও গণিতের জন্য আলাদা আলাদা বই পড়তে পারেন। তথ্যনির্ভর ফোকাস রাইটিংয়ের জন্য ‘ইউনিট লিখিত রচনা’ ও মহিদ’স বিশেষ সংখ্যাসহ বাজারে বেশ কিছু বই আছে।

অনুবাদের জন্য সৌমিত্র শেখরের বইটি দেখতে পারেন। গণিতের জন্য নবম-দশম শ্রেণির ইংরেজি মাধ্যমের সাধারণ গণিত ও উচ্চতর গণিতের বীজগণিত, জ্যামিতি ও পরিমিতি অংশ ভালো করে দেখে নিন।

নির্দেশনা
অনলাইন থেকে ডাউনলোড করা প্রবেশপত্রের প্রিন্ট কপি সঙ্গে রাখতে হবে। মোবাইল ফোন, ক্যালকুলেটর, স্মার্টওয়াচ ও কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইস সঙ্গে রাখা যাবে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা