kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

বিয়ের উপহার হিসেবে পেঁয়াজ দিলেন বন্ধুরা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৫:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিয়ের উপহার হিসেবে পেঁয়াজ দিলেন বন্ধুরা!

ভারতে পেঁয়াজের দাম বাড়ছেই। দাম অগ্নিমূল্য হওয়ায় ভারত জুড়েই হাহাকার দেখা দিয়েছে। এই নিয়ে তোপের মুখে পড়তে হচ্ছে সরকারকে। অধিকাংশ জায়গায দাম নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ। ভারতে দামবৃদ্ধির নিরিখে সোনাকেও টপকে গেছে পেঁয়াজ। তাই এক বিয়ের অনুষ্ঠানে উপহার হিসেবে দেওয়া হলো পেঁয়াজ। বিয়ের উপহার হিসেবে দেওয়া হলো ৩০ কেজি পেঁয়াজ! 

ভারতের বর্ধমান শহরের রাজগঞ্জের সঙ্গীতা কুণ্ডুর সঙ্গে চারহাত এক হল শহরেরই আলমগঞ্জের শুভম রায়ের। বিয়ের অনুষ্ঠান হয় দিঘিরপুলে একটি অনুষ্ঠান বাড়িতে। বিয়েতে পাত্রীর বন্ধুদের মধ্যে এসেছিলেন পূজা রাজবংশী, কপিল কুণ্ডু, ভোলানাথ রাজবংশী প্রমুখ। গায়ে হলুদের পরে তারা ঢুকলেন ঝুড়ি হাতে, তাতে ভর্তি লাল রঙের পেঁয়াজ, দু'-চার কেজি নয়, একেবারে ৩০ কেজি! এমন উপহারের জন্য কেউ প্রস্তুত ছিলেন না। উপহার দেখে প্রথমে তারা অবাক। তারপরে সঙ্গীতার হাসি দেখে কে! 

পূজা, কপিলরা কেন এমন উপহার দিলেন? এমন ভাবনাই বা কী করে এল? পূজা বলেন, পেঁয়াজ এখন মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে। সোনার দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। তাই এখন বিয়েবাড়িতে এর চেয়ে ভালো উপহার আর কী হতে পারে?  

কপিল বলেন, সব দিক বিবেচনা করেই আমরা ঠিক করি বিয়েতে পেঁয়াজ দেব। তাতে উপহারের মধ্যে একটা চমক থাকবে। বিয়ের পরে ক'টা দিন অন্তত পেঁয়াজ নিয়ে ভাবতে হবে না নবদম্পতিকে।

এমন উপহার পেয়ে পাত্রী সঙ্গীতা কুণ্ডু বলেন, সোশ্যাল সাইটে এই ধরনের ঘটনা দেখতাম। কিন্তু বাস্তবে এই ঘটনার সাক্ষী হব, স্বপ্নেও ভাবিনি। বিয়ে করতে এসে পাত্র শুভমও জানতে পারেন স্ত্রীর বন্ধুদের এমন উপহারের কথা। সব শুনে তিনি বেশ মজাই পেয়েছেন। তিনি বলেন, এত পরিমাণ দামি জিনিষ কিভাবে ঘরে রাখা যায়, সেটাই চিন্তা। সোশ্যাল সাইটগুলোতে তো এখন পেঁয়াজ-টম্যাটো নিয়ে ট্রোল হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা