kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

পশু-পাখি প্রেমিক বেনু রায়

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ১৭:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশু-পাখি প্রেমিক বেনু রায়

হবিগঞ্জ শহরে গাছ-গাছালি কমছে দিনের পর দিন। এক সময় পাখ-পাখালিতে মুখরিত থাকা এই শহরে এখন পাখি নেই বললেই চলে। বন্য পশু থাকা সেখানে কল্পনা বিলাস। কিন্তু একজন বেনু রায়ের অন্যরকম ভালোবাসায় এখনো কিছু পাখি এবং একটি বানরের উপস্থিতি চোখে পড়ে হবিগঞ্জ শহরের চিড়াকান্দি বাগান বাড়ি এলাকায়। ব্যবসায়ী বেনু রায় তার বাসার সামনে প্রতিদিন খাদ্য ছড়িয়ে-ছিটিয়ে দেন। আর পাখিরা এসে আনন্দ মনে খাবার খায়। কলা রাখার পর একটি বানর এসে খেয়ে চলে যায় মনের আনন্দে।

সরজমিনে বেনু রায়ের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, ফুল, ফল আর গাছ-গাছালিতে পূর্ণ তার বাসা। শহরে অবস্থান হলেও এখানে গ্রামীণ পরিবেশ। মুগ্ধ করে পাখির কলরব আর রঙ্গিন প্রজাপতির ছুটে চলা। বেনু রায়ের বাড়িতে আসে ঝাঁক ঝাঁক চড়ুই শালিক, বুলবুল আর ঘুঘু। 

বনু রায় প্রতিদিনই চাউল, ভাত এবং কলা নিয়ে বেড়িয়ে যান পাখি এবং বানরকে খাদ্য দিতে। বেনু রায় জানান, সকাল ৬টায়, দুপুর ১টায় এবং বিকেল ৫টায় খাবার দেই। সব সময় সেখানে খাবার রেখে দেওয়া হয়। খাবার দেওয়ার কিছুক্ষণ পরই পাখিরা চলে আসে। এখানে একটি বানর প্রতিদিন আসে। তার জন্য দিতে হয় কলা। এভাবে পশু পাখিকে খাদ্য দিতে পারা আমার জন্য আনন্দের। বাসার সবাই আমার এই কাজ পছন্দ করে। আমরা এই পশু পাখিকে আমাদের পরিবারের অংশই মনে করি।

বেনু রায়ের মেয়ে উর্মি রায় বর্ণা জানান, এই পশু এবং পাখির খাবার গ্রহণের দৃশ্য আমাদের খুবই ভালো লাগে। এক সময় প্রাকৃতিক উৎস থেকেই এসকল পশু পাখি খাবার গ্রহণ করত। কিন্তু প্রকৃতি নষ্ট করে দেওয়ার ফলে পশু-পাখিদের খাবার এবং আবাসস্থলের সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা