kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কলকাতায় পথ হারালেন বাংলাদেশি বৃদ্ধা, তরুণীর উদ্যোগে ফিরে পেলেন পরিবার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কলকাতায় পথ হারালেন বাংলাদেশি বৃদ্ধা, তরুণীর উদ্যোগে ফিরে পেলেন পরিবার

গলায় অপারেশন হয়েছে। কথা বেরোচ্ছে না ঠিকঠাক। গায়ে মলিন শাড়ি, ব্লাউজ নেই। চোখে-মুখে আতঙ্ক। এমনই অসহায় অবস্থায় এক বৃদ্ধা মহিলাকে নিজের ফ্ল্যাটের তলায় দেখতে পান বেহালার তরুণী মধুপ্রিয়া সেনগুপ্ত। বাড়ির পরিচারিকার থেকে যখনই খবর পান ওই একাকি বৃদ্ধার বিষয়ে, সঙ্গেসঙ্গেই তিনি ছুটে গিয়েছিলেন দেখতে।

তারপরের ঘটনা নিঃসন্দেহে মধুপ্রিয়ার উপস্থিত বুদ্ধি আর মানবিক মনের পরিচয় বহন করে। অসহায় ওই মহিলাকে নিজের ঘরে নিয়ে আসেন পেশায় জনসংযোগ কর্মকর্তা মধুপ্রিয়া। খাবার দেন, পোশাকও তুলে দেন হাতে। জানার চেষ্টা করেন কী হয়েছে আদতে? কোথায় থাকেন তিনি? কী নাম? কে কে আছেন পরিবারে?

ঠাকুরপুকুর ক্যানসার হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা ওই মহিলা সেভাবে কথাই বলতে পারছিলেন না গলায় অপারেশনের কারণে। তাতেও কষ্ট করে তিনি যেটুকু জানাতে সক্ষম হন, তাতে বোঝা যায় ভদ্রমহিলার বাড়ি বাংলাদেশে। চিকিৎসার জন্যে ছেলেকে নিয়ে তিনি কলকাতায় এসেছেন। আর সেখান থেকে হারিয়ে গিয়েছেন তিনি। ছেলেকে আর খুঁজে পাননি।

অসহায় ওই বৃদ্ধার কথা শুনেই ফেসবুক, ট্যুইটারে পোস্ট করেন মধুপ্রিয়া। ট্যাগ করে দেন কলকাতা পুলিশকে। শুধু তাই নয়, বেহালা থানায় ফোন করেও বিষয়টা জানান। এরপর রাতেই বেহালা থানা থেকে পুলিশ এসে ওই মহিলাকে নিয়ে যান।

এরপরই খোঁজখবর নিয়ে বেহালা থানার পুলিশ জানতে পারে, হরিদেবপুর থানায় একজন বৃদ্ধার হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে একটি মিসিং ডাইরি হয়েছে। তারপরই বেহালা থানা থেকে মহিলাকে পাঠানো হয় হরিদেবপুর থানায়। মহিলার পরিজনদের ডাকা হয় থানায়। জানা গিয়েছে মহিলার নাম মেরী মণ্ডল। থানাতেই পরিজনদের ফিরে পান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা