kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঋদ্ধকে স্মরণ করল বন্ধুরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ১৫:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঋদ্ধকে স্মরণ করল বন্ধুরা

তখন সবে সন্ধ্যা ছুঁই ছুঁই। লেকের পারে পানির পাশে বসে বাঁশিতে ফুঁ দিচ্ছিল ঋদ্ধ। বাঁশি বাজাতে বাজাতেই একসময় সে লেকের পানিতে নেমে পড়ে। এই দেখে লেকের পার ঘিরে চলা পথচারীরা থমকে দাঁড়ায়। একজন এগিয়ে গিয়ে ঋদ্ধকে উদ্ধারে হাত বাড়িয়ে দেন। কিন্তু ডুবতে থাকা ঋদ্ধের হাত ধরতেই উল্টো তিনি বিপদে পড়ে যান। 

ঋদ্ধের হাত নিচের দিকে টেনে নিতে থাকে তাঁকে। ভয়ে-আতঙ্কে একপর্যায়ে লোকটি ঋদ্ধের হাত ছেড়ে ওপরে উঠে আসেন। দেখতে না দেখতেই কিছুক্ষণের মধ্যে লেকের পানিতে ডুবে যায় ঋদ্ধ। পরে ফায়ার সার্ভিস তার লাশ উদ্ধার করে। হৃদয়ঙ্গম ঋদ্ধ (১৭) ড্যাফোডিল কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

ঋদ্ধ'র এই চলে যাওয়া কেমন বিষণ্ণ করে তুলেছিলে তার বন্ধুদের, সহপাঠীদের, অভিভাবকদের। বহু গুণের অধিকারী ঋদ্ধ এভাবে কেন চলে যাবে? এই প্রশ্নের উত্তর যেন কারো কাছেই ছিল না। ধানমণ্ডি লেকের এক সন্ধ্যা ঋদ্ধকে আলাদা করে ফেলল তাদের কাছ থেকে। অথচ কতশত স্মৃতি ঋদ্ধর সাথে ছায়ানটের বারান্দার, শৈশবের বন্ধুদের। এসব স্মৃতি এখন ঘুরেফিরে উঁকি দিয়ে যায়। ঋদ্ধকে নিয়ে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়েছিল ছায়ানটে। 

 

এই তো গত শুক্রবার বন্ধুরা বলল, তাঁকে নিয়ে কত কথা। অভিভাবকেরা জানালেন তাদের কথা। ঋদ্ধের মা ফেললেন চোখের জল। কাছের, শৈশবেরা বন্ধুরা পড়ে শোনাল ঋদ্ধ'র লিখে যাওয়া কবিতা। প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপুও বললেন ঋদ্ধকে নিয়ে।  ঋদ্ধ বারবার ফিরে আসবে তাদের স্মরণে, ছায়ানটের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে, অনুষ্ঠানের ব্যাকড্রপে। কেননা এই যে স্মরণসভার পেছনের রবীন্দ্রনাথকেও ঋদ্ধ এঁকে গেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা