kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

ঘুমানোর আগে স্মার্টফোনকে 'না' বলবেন যে কারণে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৯ ১৬:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঘুমানোর আগে স্মার্টফোনকে 'না' বলবেন যে কারণে

প্রতীকী ছবি

স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে ভয়াবহ শারীরিক ও মানসিক সমস্যায় পড়তে পারেন আপনি। তাই সময় থাকতেই সাবধান হওয়া জরুরী। স্মার্টফোনে আসক্তির ভয়াবহ বিপত্তিতে পড়ছেন অনেকেই। দিন-দিন এর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। আর ঘুমানোর আগে স্মার্টফোন ব্যবহার করলে বিপত্তি আরো বেড়ে যেতে পারে।  

আপনারও কি আজকাল অতিরিক্ত মাথা ব্যথা এবং চোখের সমস্যা হচ্ছে? তাহলে এই প্রতিবেদন আপনার জন্য।

মেয়েটির নাম তোর্সা। বেশ কিছুদিন ধরেই চোখে বেশ সমস্যা হচ্ছিল তার। চোখ লাল, চোখ দিয়ে পানি পড়া তো আছেই। সেই সঙ্গে চোখে ব্যথা। দেখতে অসুবিধা হচ্ছে। পরে ভেবেছিল বোধহয় দূষণ আর ঘুম ঠিকমতো না হওয়ার জন্য হচ্ছে। এরপর শারীরিক সমস্যা আরও বাড়ায় চিকিৎসকের কাছে যায় তোর্সা। চিকিৎসক যা বললেন তা শুনে তো তোর্সার মাথায় হাত। দূষণ এবং চোখের রক্তচাপ হঠাৎ করে বেড়ে গিয়ে রক্তজালিকা ছিঁড়ে গেছে তার। এমনকি দুটো চোখ শুকনো হয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ অশ্রুসজল ব্যাপারটা আর থাকছে না। কারণ হিসেবে তিনি প্রথমেই বললেন অতিরিক্ত মোবাইল এবং ল্যাপটপ ব্যবহারের কথা। 

চিকিৎসকরা জানান, শুধু তোর্সাই নন, এ রকম বহু মানুষই এ সমস্যার ভুক্তভোগী। 

চিকিৎসকেরা বলছেন, রাতের বেলার শুয়ে স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারই ডেকে আনছে বিপত্তি। কারণ, ফোনের ওই নীল রং মস্তিষ্কের কাজে বাধা দেয়। ফলে ঘুম আসতে দেরি হয়। এ ছাড়াও চোখের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন ব্যাহত হয়। ই-বুকে একলাইন পড়তে যে সময় লাগে, বই পড়তে তার চেয়ে ১০ মিনিট কম সময় লাগে। আর রাত জেগে মোবাইল ঘাঁটলে খিদের চোটে ভুলভাল খেয়ে ফেলা হয়। যেখান থেকে টাইপ-ওয়ান ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা থাকে। শারীরিক সমস্যা তো রয়েছেই। 

এ কারণে চিকিৎসকেরা পরামর্শ দিচ্ছেন, ঘুমাতে যাওয়ার দু'ঘন্টা আগে মোবাইল বা ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। এতে ঘুমের ব্যাঘাত হয়। যেখান থেকে শরীরের নানা সমস্যা আসে। এমনকি দুরারোগ্য ব্যধি পর্যন্ত হতে পারে। আপনারও এই অভ্যাস থাকলে এখনই সাবধান। ঘুমাতে যাওয়ার আগে মোবাইল ব্যবহার করলে এখনই বন্ধ করুন। ই-বুক না পড়ে আলাদা করে বই পড়ুন। নেটফ্লিক্সের বদলে পর্দায় সিনেমা দেখা অভ্যেস করুন।
 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা