kalerkantho

বিশ্ব অলস দিবস পালন করছেন তারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ আগস্ট, ২০১৯ ১৭:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সচরাচর কাজ না করে বাউণ্ডুলে জীবন যাপনের জন্য বাড়িতে বাবা-মার কাছে অলস বলে ঝাড়ি খেতে হয় অনেককেই। কিন্তু কলম্বিয়ার অনেকেই ঘটা করে বিশ্ব অলস দিবস পালন করেছেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই এ ধরনের অদ্ভুত দিবস পালন করা হয়।

জানা গেছে, ১০ আগস্ট সচরাচর অলস দিবস পালন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রেও ১০ আগস্ট অলস দিবস পালন করে থাকেন অনেকেই। আজ ১৯ আগস্ট বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে লিখেছে, আপনি কি অবসাদগ্রস্ত? একটু বিরতি নিয়ে কলম্বিয়ার দিকে রওনা করুন। সেখানকার ইটাগুই শহরে বিশ্ব অলস দিবস পালন করছে। যেসব শ্রমিক বাড়তি চাপের কারণে ন্যুব্জ হয়ে পড়ছে, তাদের চাপ কিছুটা কমানোর জন্য এ ধরনের আয়োজন।

তবে ঠিক কবে থেকে এবং কী কারণে এই দিবস চালু করা হয়েছে, আর কারা এর আয়োজক সে সম্পর্কে তেমন কিছুই জানা যায়নি। অনেকেই মনে করেন, অলস দিবসের আয়োজকরা এতটাই অলস যে, এসব আর লিখে রাখার অ্যানার্জি তাদের ছিল না। যদিও ১৯৮৫ সাল থেকে ইটাগুই শহরে অলস দিবস পালন করা হচ্ছে। 

মূলত, অলস দিবস হলো ছুটির দিন। ওই দিন যারা পালন করেন, তারা কোনো ধরনের কাজই সেদিন করেন না। আড্ডাবাজি করার মোক্ষম দিন হলো অলস দিবস। ওই দিন অলসরা একনাগাড়ে শুয়ে থেকে কাটিয়ে দেন। একটু বাড়তি বিনোদনের জন্য বাইরে খাট-চৌকি ফেলে আড়ম্বরপূর্ণভাবে অনেকেই শুয়ে থাকেন। 

এমনকি শুয়ে থাকার সময় অন্যের পা নিজের গায়ে চেপে থাকলে কিংবা গায়ের ওপর পোষা কুকুর এসে শুয়ে ঘুমিয়ে গেলেও তারা কোনো রকম প্রতিক্রিয়া দেখান না। 

ভিডিওতে দেখুন অলসদের ‘কর্মকাণ্ড’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা