kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

নিউ ইয়র্কে স্মরণসভা

হুমায়ূন আহমেদ ফাউন্ডেশন করার ঘোষণা দিলেন শাওন

বিশেষ প্রতিনিধি, নিউ ইয়র্ক   

২২ জুলাই, ২০১৯ ১১:২৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হুমায়ূন আহমেদ ফাউন্ডেশন করার ঘোষণা দিলেন শাওন

'নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ছিলেন মানুষের ঘরের মানুষ। তার সৃষ্ট চরিত্ররা যেন আমাদের চারপাশে ঘুরে বেড়ায়। মানুষকে স্বপ্ন দেখতে শিখিয়েছেন এই কিংবদন্তি। তাই হুমায়ূন ছিলেন, তিনি আছেন, তিনি থাকবেন'- এভাবেই তার সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নিউ ইয়র্কে আয়োজিত এক সভায় প্রিয় লেখককে স্মরণ করলেন বক্তারা।

২০১২ সালের ১৯ জুলাই এই নিউ ইয়র্কেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছিলেন বাংলা সাহিত্যের প্রবাদপুরুষ। রবিবার দিনটি স্মরণে জ্যামাইকার একটি মিলনায়তনে হুমায়ূন আহমেদ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। শুরুতেই দোয়া পরিচালনা করেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ইমাম মাওলানা আবু জাফর বেগ। ফাউন্ডেশনের সভাপতি মুনিয়া মাহমুদের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন, নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের হেড অব চ্যান্সরি চৌধুরী পারভিন সুলতানা, সাংবাদিক মনজুর আহমদ, অভিনেত্রী রেখা আহমদ, লেখক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, নুরুল হক, ফখরুল ইসলাম দেলোয়ারসহ অনেকে। 

লেখক ও সাংবাদিক শামীম আল আমিনের সভাপতিত্বে এতে বক্তারা বলেন, হুমায়ূন আহমেদের স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যেতে হবে। বিশেষ করে লেখক একটি ক্যান্সার হাসপাতাল করার কথা বলেছিলেন। সে কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বক্তারা বলেন, এ নিয়ে উদ্যোগী হতে হবে। এ ছাড়া হুমায়ূন আহমেদের আগামী প্রজন্মের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নেওয়া এবং অনুবাদের ওপর গুরুত্ব দেন বক্তারা। এ সময় নুরুল হক জানান, নিউ ইয়র্কের একটি রাস্তার নাম হুমায়ূন আহমেদের নামে করার জন্যে এরই মধ্যে সিটি কাউন্সিলে একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। সেই উদ্যোগ বাস্তবায়নের খুবই সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্মরণসভায় মেহের আফরোজ শাওন বলেন, হুমায়ূন আহমেদের স্বপ্ন পূরণের স্বপ্ন নিয়েই তিনি বেঁচে আছেন। দুই সন্তানকে সাথে নিয়ে শেষ পর্যন্ত সেই চেষ্টা করে যাবেন তিনি। এ সময় নিশাদ হুমায়ূন ও নিনিত হুমায়ূনকে পাশে নিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি। তিনি বলেন, হুমায়ূন আহমেদের ক্যান্সার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার জন্যে এরই মধ্যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বাস্তবায়নের বিভিন্ন ধাপে তা জানানো হবে। সে জন্যে সবার সহায়তা চান তিনি। 

হুমায়ূন আহমেদের কাজকে সবার সামনে তুলে ধরা এবং তার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্যে জাতীয়ভাবে একটি ফাউন্ডেশন হওয়া দরকার উল্লেখ করে শাওন জানান, এর জন্যে পরিবারের সবার মতামত নেওয়ার চেষ্টা করছেন তিনি। মেহের আফরোজ শাওন বলেন, পরিবারের সবাই মত না দিলেও ফাউন্ডেশন হবে। একজন হুমায়ূনভক্ত হিসেবে হলেও এই কাজটি আমি করব। এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে হুমায়ূন আহমেদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন, স্মৃতি রক্ষা ও তার লেখা ছড়িয়ে দেওয়াসহ বিভিন্ন কাজ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা