kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

'গান্ধী বাত' তৃতীয় সিজনে 'মীরাক্কেলের' পল্লবী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুলাই, ২০১৯ ১৯:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'গান্ধী বাত' তৃতীয় সিজনে 'মীরাক্কেলের' পল্লবী

কয়েক বছর ধরে মুম্বাইয়ে পাকাপাকিভাবে থাকছেন পল্লবী মুখোপাধ্যায়। বাঙালি এই অভিনেত্রীকে দেখা যাবে অল্ট বালাজি'র বহুচর্চিত গান্ধী বাত ওয়েব সিরিজের তৃতীয় সিজনের প্রধান চরিত্রে। 

সম্প্রতি শেষ হয়েছে হিন্দি ধারাবাহিক ‘ঝাঁসি কি রানি’-র শুটিং। ওই ধারাবাহিকে মণিকর্ণিকার প্রিয় বান্ধবী বিমলার চরিত্রে দর্শক দেখেছেন পল্লবীকে। বিমলার চেয়ে একেবারেই আলাদা ‘গান্ধী বাত’-এর বিচ্চি। সেই চরিত্র ও সিরিজ নিয়ে কথা বলেছেন পল্লবী মুখোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, ঝাঁসি কি রানি'র যখন কাজ চলছে, তার মধ্যেই জানুয়ারি মাসে আমি প্রথম অডিশন দিতে যাই। জসওয়ান্ত প্রোডাকশন, যারা ‘গান্ধী বাত’ সিরিজটি করছে অল্ট বালাজি-তে সেখান থেকে নেহা গুপ্তা প্রথমে ডেকে পাঠিয়েছিলেন। তার পরে অনেকগুলো অডিশন হয়। আমার মতো নেহাও ছিলেন ‘মীরাক্কেল’-এ, এখন ‘গান্ধী বাত’ সিরিজটি দেখেন। 

তিনি আরো বলেন, আমার কাছে অভিনেতা মানে সব রকম কাজ করতে পারবে। এমন নয় যে আমি শুধু সিরিয়ালই করব। আর বোল্ড সিন তখনই থাকে যখন স্ক্রিপ্টে প্রয়োজন হয়।

তবে এবার অডিশন দিতে যেতে তাকে উৎসাহ যুগিয়েছেন পল্লবীর মা। অডিশনে যেতে পল্লবী দোটানায় পড়েছেন দেখে তিনি বলেন, কেন, তুই এই চরিত্রটা করতে পারবি না?

ওই কথার পর সব সংশয় কাটিয়ে ফেলেন পল্লবী, এমনটাই জানান তিনি। এত অল্প বয়সে এই ধরনের চরিত্র করতে গেলে পরিবারের অনুমোদন ও উৎসাহ অত্যন্ত প্রয়োজন। পল্লবী যে নিঃসঙ্কোচে এই চ্যালেঞ্জিং চরিত্রটি করতে পেরেছেন, তা একেবারেই তার মায়ের অনুপ্রেরণায়।

তবে ‘ঝাঁসি কি রানি’-র বিমলা থেকে ‘গান্ধী বাত’-এর বিচ্চি অভিনেত্রী হিসেবে এই শিফট কিন্তু সহজভাবেই নিয়েছেন পল্লবীর গুণমুগ্ধ ও ফ্যান-ফলোয়াররা। পল্লবীর আশঙ্কা ছিল হয়তো ‘গান্ধী বাত’-এর ট্রেলার সামনে এলে তাকে অনেক ট্রোল ও মিম সহ্য করতে হবে। কিন্তু অভিনেত্রী জানান, উল্টো সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই তার প্রশংসা করেছেন, এমন একটি চরিত্রে অভিনয়ের সাহসী পদক্ষেপের জন্য।

‘মীরাক্কেল’ দিয়ে টেলিভিশন ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল পল্লবীর। তখন নিতান্তই টিনএজার। ‘ভুতু’, ‘মীরা’, ‘খোকাবাবু’ ও ‘পটলকুমার গানওয়ালা’-য় বিশেষ বিশেষ চরিত্রে অভিনয়ের পর মায়ের সঙ্গে মুম্বাই পাড়ি দেন তিনি। তার পর একের পর এক হিন্দি ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। একটি সিনেমাও করেছেন, ‘তেজ রফতার’ যা এখনও মুক্তি পায়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা