kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

ভারতের ট্রেনের টিকিটে নারীদের পোয়া বারো

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ জুলাই, ২০১৯ ২০:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের ট্রেনের টিকিটে নারীদের পোয়া বারো

দূরপাল্লার ট্রেনে নারী কোটায় টিকিট কাটার সুবিধা থাকলেও অনেকেই তা নিতে পারেন না নিয়ম না জানার ফলে। সম্প্রতি সেই টিকিটে আরো সুবিধা দিয়েছে ভারতীয় রেলওয়ে।

কোনো নারী একা যাত্রা করলে যেমন এই সুবিধা পেতে পারেন, তেমনিভাবে এই কোটা ব্যবহার করতে পারবেন এক টিকিটে থাকা নারীদের দল। সর্বাধিক ছয়জন নারী একসঙ্গে পুরুষ ছাড়া যাত্রা করলে এই কোটায় টিকিট কাটতে পারবেন। এই দলে ১২ বছর বয়স পর্যন্ত ছেলে থাকলেও সুবিধা দেয় রেলওয়ে।

একা ভ্রমণকারী নারীদের জন্য বিশেষ সুযোগ করে দিয়েছে রেলওয়ে। নারীদের কোটায় ফাঁকা আসনে ‘ওয়েটিং লিস্ট’ যাত্রীদের ঢোকানোর ক্ষেত্রে এখন প্রাধান্য দেয়া হয় নারীদেরই। তার পর আসবেন প্রবীণ নাগরিকরা। তার পরেও যদি আসন খালি থাকে সেক্ষেত্রে সাধারণ যাত্রীদের কথা ভাবা হয়।

সংরক্ষণ চার্ট তৈরি হওয়ার আগে পর্যন্ত এই কোটায় টিকিট কাটা যায়। আগে টিকিট বুকিংয়ের সময় শেষ হওয়ার পর যদি দেখা যায়, এই কোটা পুরোপুরি পূরণ হয়নি, সেক্ষেত্রে ‘ওয়েটিং লিস্টের’ তালিকা অনুযায়ী লিঙ্গ নির্বিশেষে এই আসন দেয়া হতো যাত্রীদের। 

২০১৮ সালেই নতুন নিয়ম চালু হয়েছে। নারী কোটা নামটাকে ঠিকঠাক কাজে লাগাতে নতুন নির্দেশিকা জারি করে রেল। সেখানে বলা হয়, সংরক্ষণ চার্ট তৈরি করার সময় ওই কোটার আসন খালি থাকলে, প্রথমে সেই আসনটি পাবেন ‘ওয়েটিং লিস্ট’-এ থাকা প্রথম নারী। যদি এ রকম কেউ না থাকেন, তাহলে প্রাধান্য পাবেন ওয়েটিং লিস্টে থাকা প্রথম প্রবীণ নাগরিক। যদি সে রকমও কেউ না থাকেন, তাহলে তালিকা দেখে আসন দেয়া হবে লিঙ্গ নির্বিশেষে সাধারণ যাত্রীদের।

এই কোটায় টিকিট অবশ্য শুধু স্লিপার ক্লাসেই পাওয়া যায়। একটি ট্রেনে সর্বাধিক ছয়টি টিকিট নারী কোটায় বিক্রি হয়। এই বাথগুলো থাকে একসঙ্গে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা