kalerkantho

বুধবার । ২৪ জুলাই ২০১৯। ৯ শ্রাবণ ১৪২৬। ২০ জিলকদ ১৪৪০

ভারতের সংসদে পড়লেন মৈত্র

এই সাত লক্ষণ থাকলে বুঝবেন রাষ্ট্র ফ্যাসিবাদী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ জুন, ২০১৯ ১৫:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এই সাত লক্ষণ থাকলে বুঝবেন রাষ্ট্র ফ্যাসিবাদী

নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন ভারত ক্রমেই ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির সংসদ সদস্য মহুয়া মৈত্র।

মহুয়া তৃণমূল কংগ্রেস'র নেতা। প্রথমবারের মতো এবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। সংসদে গিয়েই মোদির কর্তৃত্বপরায়ন শাসন ব্যবস্থার তীব্র সমালোচনা করেন। বর্তমান ভারতকে ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র হিসেবে মন্তব্য করেন তিনি। তাঁর এই মন্তব্য নিয়ে শুরু হয়েছে তুমুল আলোচনা।

মহুয়া মৈত্র বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের হলোকাস্ট মেমোরিয়াল মিউজিয়ামে একটি পোস্টার দেখেছিলেন তিনি। সেখানে ফ্যাসিবাদের প্রাথমিক লক্ষণসমূহের এক তালিকা রয়েছে। সেই তালিকা অনুযায়ী বর্তমান ভারতের মিল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে। ভারতের সংবিধান এই ফ্যাসিবাদের কবলে পড়ে এখন হুমকির মুখে মন্তব্য করে তালিকাটি পড়ে শোনান।

সংসদে পড়ে শোনানো ফ্যাসিবাদের সাতটি লক্ষণ হলো:

১। দেশে শক্তিশালী ও ধারাবাহিক জাতীয়তাবাদ ক্রমে দেশের জাতীয় পরিচয়ে পরিণত হয়। এটি  'সুপারফেশিয়াল' বা এর আসলে কোনো গভীরতা নেই। এটি বর্ণবাদ এবং সংকীর্ণ ভাবনা। এটি বিভক্তি বাড়ায় আর কোনোভাবেই ঐক্যের চেষ্টা করে না।

২। মানবাধিকারের প্রতি একটি ব্যাপক অবজ্ঞা। ২০১৪ থেকে ২০১৯ এর মধ্যে এই প্রবণতা অন্তত ১০ গুণ বেড়েছে।

৩। গণমাধ্যমের ওপর কর্তৃত্ব এবং নিয়ন্ত্রণের কড়া সমালোচনা করেন মিস মৈত্র। তিনি বলেন, ভারতের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো নিজেদের এয়ারটাইমের বড় অংশ ক্ষমতাসীন দলের প্রচার-প্রোপাগান্ডায় ব্যয় করছে।

৪। জাতীয় নিরাপত্তার জন্য বাড়তি সচেতনতার জন্য সরকারকে আক্রমণ করেন মৈত্র। তিনি বলেন, 'ভারতে এক ভয়ের সংস্কৃতি তৈরি করা হয়েছে এবং প্রতিনিয়ত নতুন শত্রু সৃষ্টি করা হচ্ছে।'

৫। মুসলমানদের লক্ষ্য করে আইনে সংশোধন আনার ঘটনাকে ফ্যাসিবাদের সঙ্গে তুলনা করেন মৈত্র। তিনি বলেন, সরকার ও ধর্ম পরস্পরের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে। এ সম্পর্কে কী আমার বলবার প্রয়োজন আছে? আমার কী বলার প্রয়োজন আছে যে নাগরিক হওয়ার মানে কী- সেটাই আমরা বদলে দিয়েছি?' 

৬। বুদ্ধিজীবী ও শিল্পের প্রতি চরম অবজ্ঞা দেখানো হয়েছে এবং ভিন্ন মতাবলম্বীদের ওপর শোষণ চালানো হয়েছে। একে ফ্যাসিবাদের সব চিহ্নের মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিকর বলে মন্তব্য করেছেন মৈত্র। এটি  ভারতকে অন্ধকার যুগে নিয়ে গেছে।

৭। দেশটির নির্বাচন ব্যবস্থার স্বাধীনতা নষ্ট হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করে একে ফ্যাসিবাদের শেষ চিহ্ন হিসেবে উল্লেখ করেন মৈত্র। 

সূত্র : বাংলা 

মন্তব্য