kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

ছেলের বুক চিড়েছে ডাক্তার, ব্যথিত বাবার বুকেও সেই দাগ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ জুন, ২০১৯ ২১:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছেলের বুক চিড়েছে ডাক্তার, ব্যথিত বাবার বুকেও সেই দাগ

মার্টিন ওয়াটসের ছেলে জোয়ের ছয় বছর বয়স। আর এই বয়সেই সার্জারি করার জন্য ছুরির নিচে যেতে হল থাকে। আর ছেলেকে একটু শান্তনা দিতে বাবা গেলেন সুচের নিচে। সার্জারির ফলে ছেলের বুকে যে ক্ষতচিহ্নের মতো হয়েছে ঠিক একই ধরনের ক্ষতচিহ্নের মতো একটি ট্যাটু আঁকলেন জোয়ের বাবা মার্টিন ওয়াটস।

মার্টিন ওয়াটসের ছেলে জোয়ের জন্মের আগেই সুপরাভালভুলার অর্টিক স্টেনোসিস নামে একটি রোগে আক্রন্ত হয়। জন্মের পর এই রোগটি বৃদ্ধি পায়। এই রোগটি জোয়ের শরীরে এবং হৃৎপিণ্ডর মধ্যে রক্ত প্রবাহে বাধা সৃষ্টি করতো। ১৪ সপ্তাহ বয়সেই তার এই রোগটি নির্ণয় করা হয়।

জোয়ের মা লিয়ান ওয়াটস জানান, ছয় বছর বয়সী একটি ছেলের জন্য এই ধরনের সার্জারি করা এতো সহজ নয়। যখন জোয় দেখতে পয় তার ক্ষতচিহ্নটি তখন জিজ্ঞেস করে এইটা কী সেই জায়গা যেখানে সার্জারি করে আমার হৃৎপিণ্ড ভালো করা হয়েছে? পরে আমরা তাকে বুঝিয়ে বলেছিলাম যে, এই জন্য গর্বিত হতে হবে। লজ্জিত হতে হবে না তাকে।

জোয়ের এই অবস্থার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ায় সহায়তা করতে তার বাবা মার্টিন ওয়াটস নতুন একটা বুদ্ধি করলেন। তিনি জোয়ের বুকের ক্ষতচিহ্নের মতো করে তার বুকে একটি ট্যাটু আঁকলেন।

জোয়ের মা লিয়ান জানান, মার্টিনের এরকম কাজের জন্য জোয়ে এখন অতি সহজে এই ক্ষতচিহ্নের সাথে মানিয়ে নিতে পারছে।

লিয়ান ওয়াটস বলেন, এটা একেবারে চমত্কার একটি কাজ। এটা জোয়েকে দেখায় যে এতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সে জীবনে যা অর্জন করেছে তার জন্য গর্বিত হওয়া উচিত।

সূত্র: ইনসাইড ইডিশন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা