kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

মানুষের গোপনীয়তা তছনছ করে দেবে ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা লিবরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুন, ২০১৯ ১৫:৫৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মানুষের গোপনীয়তা তছনছ করে দেবে ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা লিবরা

আগামী বছর থেকে চালু হচ্ছে ফেসবুকের নিজস্ব ভার্চুয়াল মুদ্রা 'লিবরা'। মঙ্গলবার অফিশিয়াল পেইজে এক পোস্টের মাধ্যমে লিবরার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ।

মাস্টার কার্ড, পেপাল, ভিসা, ভোডাফোন, উবারের মতো বিশ্বখ্যাত ২৭টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত হয়ে এই মুদ্রা চালু করছে ফেসবুক। ভার্চুয়াল মুদ্রার ইতিহাসে সবচেয়ে গোপন প্রকল্প ছিল এটি।

তবে ফেসবুকের এ পরিকল্পনার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অনেক সমালোচক। তাঁরা বলছেন, ডিজিটাল মুদ্রা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার আগে বেশকিছু আইন-কানুনের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে ফেসবুককে। এই মুদ্রার নিরাপত্তা ও মানি-লন্ডারিংয়ের ঝুঁকি নিরসনের পর্যাপ্ত ব্যবস্থাও রাখতে হবে।

যদিও জাকারবার্গ বলছেন, লিবরা ব্যবহারে প্রত্যেকটি ধাপেই গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। তিনি বলেন, 'সহজ একটি অর্থ ব্যবস্থা হবে লিবরা।বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ এটি ব্যবহার করে উপকৃত হবেন।'

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা স্ক্যান্ডালের এক বছরেরও বেশি সময় পার হওয়ার পর লিবরা ক্রিপ্টোকারেন্সির ঘোষণা আসলো। ওই স্ক্যান্ডালে দেখা দেখা, লক্ষ লক্ষ ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে কাজে লাগানো হয়েছে। এরপর থেকে  গোপনীয়তা রক্ষার ক্ষেত্রে সংঘটিত কেলেঙ্কারির কারণে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে সামাজিক নেটওয়ার্কটি। এই ধারা এখনও চলছে।

লিবরা একটি নতুন বৈশ্বিক মুদ্রা হিসেবে আবির্ভূত হতে যাচ্ছে যা মার্কিন ডলারের মতো মূলধারার মুদ্রার জায়গা দখল করতে পারে। একইভাবে দখল করতে পারে ঐতিহ্যবাহী অর্থ প্রতিষ্ঠানের জায়গা। বিশেষজ্ঞদের উদ্বেগের কারণ হলো ফেসবুকে ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণের ক্ষেত্রে অতীতের কেলেঙ্কারির পুনরাবৃ্ত্তি ঘটতে পারে 'লিবরা' ব্যবহারের ক্ষেত্রেও।

এইচটিসি-এর প্রথম ব্লকচেইন স্মার্টফোন এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি বিশেষজ্ঞ ফিল চেন বলেন, 'যদি  আপনি ফেসবুকের ব্যাপারে খুব বেশি সচেতন হন বা আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণের ব্যাপারে উদ্বেগ থাকে, তবে লিবরা আপনাকে সরাসরি ফেসবুক অ্যাক্সেস দেবে। এর মাধ্যমে আপনার আর্থিক তথ্যের ব্যাপারে খোঁজখবর রাখতে পারবেন।'

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি কেলেঙ্কারি ঘটিয়েছে পুরনো ক্রিপ্টোকারেন্সি বিটকয়েন। বিনিময় হারে অস্বাভাবিক উত্থান-পতন এবং হ্যাকিংয়ের শিকার হয়ে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার খুইয়েছেন বিটকয়েনের ব্যবহারকারীরা। এ কারণে জাকারবার্গের লিবরা প্রজেক্টে ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা নিয়েও রয়েছে সন্দেহ। 

তবে 'লিবরা' ঘোষণায় বলা হয়েছে, লিবরা প্রজেক্টে ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার ওপরই বেশি জোর দেওয়া হয়েছে। এই ভার্চুয়াল মুদ্রার বিনিময়, পরিচালন ও সর্বোপরি নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিস্তারিত নিয়ে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে ফেসবুক। লিবরা ডট ওআরজি ওয়েবসাইটে এ ব্যাপারে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

শ্বেতপত্রের বর্ণনা অনুযায়ী, প্রচলিত ক্রিপ্টোকারেন্সির সঙ্গে লিবরার বেশ কিছু মৌলিক পার্থক্য রয়েছে। যদিও অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সির মতো লিবরার জন্যও ব্যবহার করা হচ্ছে ব্লকচেইন প্রযুক্তি এবং এটি হবে ওপেনসোর্স।

লিবরার নিরাপত্তা নিশ্চিত ও বিনিময় হার স্থিতিশীল রাখতে প্রচলিত মুদ্রার মতো রিজার্ভের ধারণা আনা হয়েছে। এই রিজার্ভের উৎস হবে বিনিয়োগকারী এবং ব্যবহারকারী। বিশেষ ইনভেস্টমেন্ট টোকেনের মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এই রিজার্ভে বিনিয়োগ করতে পারবে।

এই রিজার্ভ বিনিয়োগ করা হবে কম ঝুঁকির সম্পদে যেখানে নিয়মিত হারে সুদ পাওয়া যাবে। এর মধ্যে বেশি গুরুত্ব পাবে ব্যাংকের আমানত এবং স্থিতিশীল অর্থনীতির দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিরাপত্তা। 

সূত্র : ইন্ডিপেন্ডেন্ট 

মন্তব্য