kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

দরজা খুলল সুপার-লাক্সারি আইটিসি রয়্যাল বেঙ্গলের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ জুন, ২০১৯ ১৫:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দরজা খুলল সুপার-লাক্সারি আইটিসি রয়্যাল বেঙ্গলের

অবশেষে পথ চলা শুরু হল কলকাতায় আইটিসির দ্বিতীয় সুপার প্রিমিয়াম লাক্সারি হোটেলের। মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হল কলকাতার নতুন বিলাসবহুল হোটেল আইটিসি রয়্যাল বেঙ্গলের।

বিশাল এই হোটেলটি নির্মাণ করা হয়েছে চার দশমিক ১৬ লাখ বর্গফুট এলাকার উপর। ভারতে আইটিসির এটি সর্ববৃহৎ হোটেল। এর আগে চেন্নাইয়ের গ্র্যান্ড চোলাই ছিল আইটিসির সবচেয়ে বড় হোটেল।

রয়্যাল বেঙ্গলের ভিতরে রয়েছে মোট চারশ ৫৬টি ঘর এবং স্যুট থাকছে শহরের নবতম আইকনে, যার মধ্যে তিনশ ৭৪টি ঘর এবং স্যুট (যার মধ্যে একশ চার বিলাসবহুল স্মার্ট রুম), ৮২টি সার্ভিসড অ্যাপার্টমেন্ট, ১২টি রেস্তোরাঁ এবং পাঁচ হাজার ছয়শ ৩০ বর্গমিটারের বিপুল ব্যাঙ্কোয়েটসহ ১৫টি মিটিং ভেন্যু। 

এ ছাড়াও থাকছে ‘কায়া-কল্পা, দ্য রয়্যাল স্পা’ সেবার সুবিধা। তিনশ ৬০টি ঘরের মধ্যে দু’শ ৫৬টি ঘর থাকছে ‘টাওয়ার এক্সক্লুসিভ’ ধরনের, যার আয়তন পাঁচশ ২৭ বর্গফুট। বাকি একশ চারটি ঘর হল সাতশ ৩০ বর্গফুটের ‘আইটিসি ওয়ান’ প্রিমিয়াম ধরনের স্মার্ট রুম। এর সঙ্গেই থাকছে এক হাজার বর্গফুট এবং এক হাজার চারশ বর্গফুটের এক থেকে দুই বেডরুম সার্ভিসড অ্যাপার্টমেন্ট। এতেও যদি মন না ভরে এক হাজার ৫৬ বর্গফুটের ১২টি লাক্সারি স্যুটের যে কোনও একটি। বাকি ছয় হাজার ছয় ২০ বর্গফুটের ‘দ্য গ্র্যান্ড প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট’ এবং তিন হাজার পাঁচশ ‘দ্য প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট’ এ থাকছে বিলাসিতার সব রকম উপকরণ।

খাবারের তৃপ্তির জন্য রয়্যাল বেঙ্গলে থাকছে ‘গ্র্যান্ড মার্কেট প্যাভিলিয়ন’, ‘রয়্যাল ভেগা’, ‘ওত্তিমো কুচিনা ইটালিয়ানা’, ‘দার্জিলিং লাউঞ্জ’ এবং ‘দ্য ব্রাস রুম’-এর বিকল্প, প্রত্যেকে নিজের নিজের মেনুতে বাকিদের টেক্কা দিতে প্রস্তুত। এর প্রত্যেকটির মধ্যে থাকছে পৃথক পৃথক একাধিক কাউন্টার। তবে রয়্যাল বেঙ্গল-এর অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে এর মোট ৬১ হাজার বর্গফুটের বিশাল ব্যাঙ্কোয়েট, যার বিশেষ দ্রষ্টব্যের মধ্যে থাকছে ১৬ হাজার চারশ বর্গফুটের পিলারবিহীন ব্যাঙ্কোয়েট হল। 

এদিকে, উদ্বোধন উপলক্ষে বিশেষ ছাড়ের সুযোগ চলছে রয়্যাল বেঙ্গলের বুকিংয়ে। হোটেলের ওয়েবসাইট থেকে চলতি মাসের শেষের দিকে ঘর বুক করতে গেলে ১০ হাজার পাঁচশ থেকে ১৫ হাজার দু’শ ৫০ টাকা (কর ছাড়া) খরচ করতে হবে।

মন্তব্য