kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

অনলাইন গেমে এক রাতেই চাচার পৌনে দুই লাখ টাকা উড়িয়েছে খুদে ভাতিজা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ জুন, ২০১৯ ১৬:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অনলাইন গেমে এক রাতেই চাচার পৌনে দুই লাখ টাকা উড়িয়েছে খুদে ভাতিজা

চার মাসের জমানো টাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রেখেছিলেন ২৭ বছর বছর বয়সী মুরাদ আসাদ। সেই ব্যাংক অ্যাকাউন্টেই খোলা ছিল অনলাইন গেম অ্যাকাউন্ট সনি প্লে-স্টেশন। এরই মধ্যে মুরাদ আসাদের ছয় বছর বয়সী ভাতিজা আবদার করে বসে তার কম্পিউটারে গেম খেলার।

প্লে-স্টেশন গেম অ্যাকাউন্ট থেকে ব্যাটল রয়্যাল গেম ফোর্টনাইট খেলার সময় অনলাইনে কোনোকিছু না কেনার শর্ত দেন মুরাদ। মুরাদ ভেবেছিলেন, ছয় বছরের ছেলে অনলাইনে খরচ করতে পারবে না। তবে মুরাদের সেই আস্থা বানের জলে ভাসিয়ে দিয়ে এক রাতেই এক লাখ ৭১ হাজার সাতশ ৩০ টাকা উড়িয়ে দিয়েছে তার ভাতিজা।

অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা গায়েব হয়ে যাওয়ার বিষয়টি জানার পর খোঁজ নিয়ে মুরাদ জানতে পারেন, এক রাতে বহুবার ওই গেম খেলার জন্য ৭.৯৯ ও ৭৯.৯৯ পাউন্ড হারে বিভিন্ন সরঞ্জাম অনলাইনে কিনেছে তার ভাতিজা। এমনকি সেসব কেনার রেকর্ডও মুছে দিয়েছে শিশুটি।

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে, এই অর্থ পুনরুদ্ধার সম্ভব নয়। মুরাদ জানান, বাড়ি কেনার জন্য টাকা জমা করছিলাম। কিন্তু এক রাতেই ভাতিজা গেম খেলার জন্য অন্তত ১৫ বার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা খরচ করেছে। এখন আমি একেবারেই ফতুর।

তিনি আরো বলেন, আমি ভেবেছিলাম বড়রা ছাড়া ওর মতো শিশু ফোর্টনাইট গেম খেলতে পারবে না। কিন্তু সে তো টাকা খরচের রেকর্ড পর্যন্ত মুছে ফেলেছে। আমি তাকে বলেছিলাম কোনো কিছু কিনবে না। অথচ সে আরো আগ্রহী হয়ে উঠেছিল। আমার চার মাসের জমানো টাকা এক রাতেই শেষ হয়ে গেছে।

মুরাদ আসাদের প্রত্যাশা, সনির মতো বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান চাইলেই তার অর্থ ফেরত দিতে পারে। তবে এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত সনির তরফ থেকে কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা