kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

তিনশ বছরের প্রেতাত্মাকে বিয়ে, সম্পর্কের গল্প শোনালেন এই নারী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ মে, ২০১৯ ১৮:১১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তিনশ বছরের প্রেতাত্মাকে বিয়ে, সম্পর্কের গল্প শোনালেন এই নারী

এক নারী দাবি করেছেন যে, তিনি তিনশ বছর বয়সী এক প্রেতাত্মাকে বিয়ে করেছেন। আর ওই প্রেতাত্মা এক জলদস্যুর। সেই প্রেতাত্মার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ফলে এর আগে ওই নারীকে নাকি মেরে ফেলারও চেষ্টা করা হয়েছে।

নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের ডনপ্যাট্রিক শহরের আমান্দা তিয়াগ নামের ৪৭ বছর বয়সী ওই নারী ২০১৬ সালে দাবি করেন, জ্যাক নামের এক প্রেতাত্মাকে বিয়ে করেছেন। জ্যাক জলদস্যু ছিল। ১৭০০ শতাব্দিতে তাকে হত্যা করা হয়।

আমান্দার এসব কথা জানার পর পরিবার তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় চিকিৎসার জন্য। তার পর তাকে বিয়েও দিয়ে দেওয়া হয়। 

কিন্তু আমান্দার দাবি, বিয়ের পরই আমার স্বাস্থ্য ভেঙে পড়ে। শারীরিক নানা রকম সমস্যা দেখা দেয় আমার। এর পরই আমি জ্যাকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করি। আমি বুঝতে পেরেছিলাম এসব সমস্যার কারণ সম্পর্কে। সে কারণে যত দ্রুত সম্ভব জ্যাকের সঙ্গে সম্পর্ক ঝালিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করি। আমি নিশ্চিত ছিলাম যে, জ্যাক আমাকে ফিরিয়ে দেবে না।

কিন্তু এরই মধ্যে মারা যায় আমান্দার কুকুর। আমান্দার দাবি, আমি জ্যাককে বলে রেখেছিলাম যে আমার টবিকে যেন দেখে রাখে, তার পর আমরা আবার একসঙ্গে থাকবো। কিন্তু টবি তাকে পছন্দ করে না। সে জ্যাকের কাছে যেতেই চায় না, ওকে দেখলেই রেগে যায়। অবশেষে আমার মায়ের কাছে গেছে টবি।

তিনি আরো বলেন, জ্যাকের সঙ্গে দূরত্ব তৈরির পর আমার অবস্থা আরো খারাপ হতে থাকে। অতীতে কখনো এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি। 

সেই প্রেতাত্মার সঙ্গে বিছানায় যাওয়ারও দাবি করেন আমান্দা। জ্যাকের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের তিন সপ্তাহ পর বিয়ে করেছিলেন আমান্দা। তার পরদিনই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় তাকে। সেখানে এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন ছিরেন তিনি। 

আমান্দার দাবি, আমি ওই সময় পরিষ্কারভাবে দেখেছি যে জ্যাক কীভাবে আমার জীবনীশক্তি কেড়ে নিচ্ছে। জ্যাক আমাকে বলেছে, তার সঙ্গে সম্পর্ক না রাখলে আমাকে মরতে হবে। ভালোবাসায় ভরিয়ে দেওয়া কোনো প্রেতাত্মার এরকম সহিংস হয়ে ওঠার মুহূর্ত দেখাটা সত্যিই কষ্টের ছিল। তার পর জ্যাকের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার কথা দিয়ে ফেলি। আমার সমস্যাও সেরে যায়।

নিজের অভিজ্ঞতায় প্রেতাত্মা নিয়ে বইও লিখেছেন আমান্দা। সেখানে জ্যাকের সঙ্গে তার সম্পর্কের বর্ণনাও রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা