kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সাদ্দাম হোসেনকে চোরের অ্যালকোহল ‌'উপহার', ক্ষেপেছেন সিনেটর: রমজানে মশকরা?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মে, ২০১৯ ১৫:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাদ্দাম হোসেনকে চোরের অ্যালকোহল ‌'উপহার', ক্ষেপেছেন সিনেটর: রমজানে মশকরা?

ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো পার্লামেন্টের বিরোধীদলীয় সিনেট সাদ্দাম হোসেনের কাছে তাঁর অফিসে চুরির ব্যাপারটি ছিল অত্যন্ত বিরক্তিকর‌। তবে তার চেয়ে বেশি বিরক্তিকর ছিল সেখানে অ্যালকোহলের বোতলটি রেখে যাওয়া।

বৃহস্পতিবার রাতে ‌এই সিনেটরের অফিসে চুরি করে একদল দুর্বৃত্ত। তারা কাগজপত্র তছনছ করে। চুরি করে নিয়ে যায় ল্যাপটপ, সেলফোন এবং নগদ টাকা। কিন্তু মজার ব্যাপার হলো,  যাওয়ার সময় সেখানে রেখে যায় এক বোতল অ্যালকোহল। 

ঘটনার পরদিন শুক্রবার সাদ্দাম হোসেন গার্ডিয়ান মিডিয়াকে বলেন, 'বৃহস্পতিবার রাতে দুর্বৃত্তরা আমার অফিস তছনছ করেছে। যাওয়ার সময় তারা এক বোতল এলকোহল রেখে গেছে। কিন্তু এটি আমার জন্য অপমানজনক। কেননা, আমি মদ পান করি না। এটি আমাদের ধর্মের বিরুদ্ধে, তার ওপর এটি রমজানের মাস।'

সান ফার্নান্দোর কিয়েট স্ট্রিটের একটি ভবনে অবস্থিত সাদ্দামের অফিসের সিঁধ কাটা সিলিং শুক্রবার সকালে আবিষ্কার করেন তাঁর পাশের আইনজীবী।

ওই ভবনে সিনেটর এবং আইনজীবীর পৃথক পাঁচটি অফিস রয়েছে। এর মধ্যে দুটি অফিসে চোরচক্র সিঁধ কেটে প্রবেশ করে। একটি সিনেটর সাদ্দাম হোসেনের এবং অপরটি আইনজীবী শাবান্না মোহাম্মদের।

অ্যালকোহল ছাড়া আরও মজার ব্যাপার হলো, ছাদের যে স্থানে সিঁধ কাটা হয়েছিল সেই গর্তে আটকে ছিল ওয়াটার কুলারটি। চোরচক্র চেষ্টা করেও নিতে পারেনি সেটি। 

সাদ্দাম বলেন, দুর্বৃত্তরা ছাদের গর্ত দিয়ে পালিয়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে। তিনি বলেন, তারা সমস্ত  ফাইল তছনছ করেছে। নিয়ে গেছে ল্যাপটপ, সেলফোন এবং নগদ টাকা। কিন্তু অ্যালকোহল রেখে বিষয়টি আমার কাছে বেশি অপমানজনক। 

সূত্র : ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো গার্ডিয়ান 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা