kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

ফেসবুকে তীব্র সমালোচনা

এরকম জাহিদ বিএনপিতে বহু আছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:০২ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এরকম জাহিদ বিএনপিতে বহু আছে

আজ বৃহস্পতিবার ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য মোঃ জাহিদুর রহমান শপথ নিয়েছেন। দুপুর ১২টার দিকে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে শপথ নেন তিনি। 

শপথ নেওয়ার পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জাহিদুর রহমানকে নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। কেউ তাকে 'বিশ্বাসঘাতক' বলছেন, কেউ বলছেন 'বেইমান', কেউবা 'মীর জাফর'। কেউ আবার বলছেন 'এরকম জাহিদ বিএনপিতে বহু আছে'।

সাংবাদিক প্রভাষ আমিন লিখেছেন, 'হারাধনের ৮টি ছেলের মধ্যে দুটি ছেলেই সংসদে চলে যাচ্ছে। রইলো বাকি ছয়। আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে শপথ না নিলে আসন শূন্য হয়ে যাবে। আমার ধারণা, বিএনপির ৬ সংসদ সদস্যও শেষ পর্যন্ত শপথ নেবেন। ৬ জন না নিলে তবু দলীয়ভাবে কোনো একটি যুক্তি দিয়ে আন্দোলনের অংশ হিসেবে শপথ নিতে পারেন। তেমন না হলে বিএনপির ৬ সংসদ সদস্যের মধ্যেও ভাঙ্গন ধরতে পারে।- এই লেখাটা লিঝেছিলাম ২ এপ্রিল মোকাব্বির খানের শপথের পর। এভাবে আমার আশঙ্কা সত্যি হবে ভাবিনি।'

আফরোজা আব্বাস বলেন, 'এদের জন্যই অবৈধ হাসিনা সরকার এখন টিকে আছে।'

সংবাদটি শেয়ার করে মাসুদ সাঈদী তার ভেরিফায়েড ফেসবুকে বলেন, 'বিএনপির বর্তমান নেতৃত্বের উচিত হবে, দলের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা সকল বেইমান মোনাফেকদের চিহ্নিত করে চিরতরে দল থেকে ঘাড় ধরে বের করে দেয়া। নতুবা এইসব মোনাফেকরা সুযোগ পেলেই বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করে দেবে।'

নুরুল আজম রাজু বলেন, 'আরেকটি জাতীয় বেইমান জাহিদুর রহমান জাহিদ, শপথ নিলেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে,
বিশ্বাস ঘাতক।'

মোশাররফ খোকন বলেন, 'যুগে যুগে বেইমান-বিশ্বাস ঘাতকদের জুটেছে সীমাহীন ঘৃণা- থুতু- লাথি- জুতা।'

মোহাম্মদ নয়ন বলেন, 'এ রকম বেইমানদের কারণ দলের এ অবস্থা মীর জাফর আজ দেশনেত্রী কারাগারে আর আপনারা আছেন শপথ নিয়ে হায়রে লোভ হায়রে ক্ষমতা।'

সমীর হোসেন তারেক বলেন, 'তিন নম্বর মীরজাফর, জাতীয় বেইমান দুই।'

মোহাম্মদ রনি বলেন, 'এই জাতীয় বেইমান জাহিদুর রহমান কে বিএনপি থেকে বহিষ্কার নয়, আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করা হোকl'

শাহাদাত জুলাস বলেন, 'মির্জা ফখরুল শপথ নেবেন না বলে যে সকল কথা বলছে সে সকল ভিডিও জাতির সামনে দ্রুত তুলে ধরা হবে। এতদিন সুলতান মনসুর ও মোকাব্বিরককে জাতীয় বেইমান হতে শুরু করে মীর জাফর ব্লা ব্লা বলে বেড়িয়েছে। বিএনপির নির্বাচিতরা বলছে শপথ নেবে না। এখন তারা শপথ নিলে তাদেরও কি একই উপাধি থাকবে!'

মুকুল হোসাইন বলেন, 'এরকম জাহিদ বিএনপিতে বহু আছে এবং দাপটেই চলছে। তাদের গডফাদার ও পৃষ্টপোষকও আছে।
ত্যাগীদের মূল্যায়ন না করে টাকার বিনিময়ে মনোনয়ন দিলে এমনটাই হবে। যে দলে টাকার মাধ্যমে দলীয় মনোনয়ন ও কমিটি বিক্রি এবং দলীয় পদ পদবী বিক্রি হয়, কথায় কথায় সময়ের ত্যাগী ও জিয়া ভক্তদের আওয়ামী দালাল বানাতে পারে এবং সহজেই মাইনাস করে রাখতে পারে। এরপর আর কি বলার থাকে।'

মো. তন্ময় মোল্লাহ বলেন, 'দেশনেত্রীর জীবনে একটাই ভুল উনি সরল মনের মানুষ তো-তাই বেইমান, গাদ্দার, দালাল ও চাটুকার চিনতে পারেননি! আর তারই খেসারত দিচ্ছেন উনি, উনার পরিবার আর উনার প্রাণপ্রিয় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা! বেয়াদবি নিবেন না এক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ অনেক দূরদৃষ্টিসম্পূর্ণ!'

শাকিক আল মামুন বলেন, 'ক্ষুধার্ত কুকুরের সামনে যা আসে তাই সে খায়, এটা তো সংসদ সদস্য পদ! আপনি যেকোনো একটা কারণে নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন। দিকে দিকে আওয়ামী বিদ্বেষী জনগণের কারণে অথবা সরকার আপনাকে ভোট চুরি করে জিতিয়েছিলেন। আপনি আপনার যোগ্যতায় জয়ী হননি তা বুঝিয়ে দিলেন। আপনার মতো স্বার্থলোভী বেইমানরা জনগণের কি কল্যাণ করবে? খুব দরকার ছিলো কি সরকারি প্রোটকলের? দলের এই দুর্দশার দিনে এভাবে ৩৬০ ডিগ্রিতে পল্টি দিতে পারলেন? এতো নিচু চিন্তাভাবনা কোন জাতীয়তাবাদীর হতে পারে না। আপনাকে জাতি মীরজাফর উপাধি দিয়েছে। আপনি মীরজাফরকেও হার মানিয়েছেন। আপনার মতো একজন ভাল মানুষের দ্বারা এটা হবে কল্পনাও করতে পারি না। আপনার মতো বেইমানরা জনগণের শত্রু, দেশের শত্রু। আগামী ৫ বছরে সম্পদের পাহাড় গড়বেন, তারপর? কোথায় গিয়ে দাঁড়াবেন? আওয়ামী লীগ বেইমান চিনতে ভুল করে না, সুতরাং সেখানেও আপনার ভবিষ্যৎ দেখছি না। ধিক্কার আপনার প্রতি। যদি এতোটুকুনও আত্ম-সম্মানবোধ থেকে থাকে তাহলে জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক আদর্শকে কলঙ্কমুক্ত করবেন। মনে রাখবেন, বেইমানদের অস্তিত্ব ক্ষণস্থায়ী।'

মন্তব্য