kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

স্কটিশ নারী কী সত্যিই যিশুকে দেখেছিলেন নটরডেম আগুনে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৮:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কটিশ নারী কী সত্যিই যিশুকে দেখেছিলেন নটরডেম আগুনে?

দাউ দাউ পুড়ছিল তখন নটরডেম ক্যাথেড্রাল। ১৫ এপ্রিল পুড়ে যাওয়া সেই ছবি দেখছিলেন স্কটিশ নারী লেসলি রোয়ান।

সংবাদের সঙ্গে ভিডিও ফুটেজে রোয়ান দেখছিলেন অগ্নিকাণ্ডের ছবি। লাল হলুদ রং আগুন আর ধূসর ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন গোটা ক্যাথেড্রাল। আগুন আর ধোঁয়ার মিশ্রণটি সর্পিল ভঙ্গিমায় ওপরে চলে যাচ্ছিল চূড়াকে ছাড়িয়ে। হঠাৎ একটি ছবিতে চোখ আটকে যায় রোয়ানের। আগুনের ভেতর কী দেখেন তিনি?

লেসলি রোয়ানের দাবি, তিনি জ্বলন্ত আগুনের ভেতর দেখেছিলেন স্বয়ং যিশু খ্রিষ্টের ছায়ামূর্তি। অতঃপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি শেয়ার করেন তা। ফেসবুক পেইজে রোয়ান লিখেছেন, 'আমি আমার নিজের সঙ্গে মনের খেলা চালাতে পারি। কিন্তু ছবিটি সবাই নিজের চোখেই দেখুক।'

নটরডেম আগুনে কী সত্যিই যিশু ছিলেন? ক্যাথেড্রালটি ঘিরে আসলে কী চলছিল- তা দেখে তিনি যে স্বস্তিতে ছিলেন না-ছবিটি হয়তো তারই প্রমাণ। তাঁর এই উপাসনা ঘরটি রীতিমতো পর্যটন আকর্ষণ কেন্দ্রে পরিণত হয়েছিল- এতে কী অসন্তুষ্ট ছিলেন খ্রিষ্টীয় প্রভু? 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা ছবিটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েন। অনেকেই মত প্রকাশ করেছেন এই বলে যে, তারা একই জিনিস দেখেছেন।

সংবাদ মাধ্যমকে রোয়ান বলেন, গতরাতে আমি  ছবিটি দেখেছিলাম। যা দেখেছি তাতে আমি সত্যিই বিস্মিত।' তিনি বলেন, 'আগুনের ভেতর আমি যিশুর ছায়ামূর্তি দেখতে পাই। একদম জীবন্ত।'

অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী রোয়ানের ভাইও তাঁর সঙ্গে একমত বলে জানান তিনি। রোয়ান বলেন, 'আমি এটি শেয়ার করেছি এবং সবার মত চেয়েছি- এমনকি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী আমার ভাইও বলেছে, এটি যিশুর মতো মনে হচ্ছে।' 

কিন্তু রোয়ানকে দেখে মনে হয়েছে, ছবিটি শেয়ার করার পেছনে তাঁর একটি উদ্দেশ্য আছে। এমনটি মনে হয়েছে রোয়ানের বক্তব্য থেকে। তিনি বলেন, 'আমার মনে হয় ছবিটি এই দুঃখের দিনে প্যারিসের তো বটেই, গোটা বিশ্বের মানুষকে সান্ত্বনা দেবে।' 

সূত্র: এনটিডি 

মন্তব্য