kalerkantho

২০ লাখ টাকায় বিক্রি হতে যাচ্ছিল চিতাবাঘের ছাল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২০ লাখ টাকায় বিক্রি হতে যাচ্ছিল চিতাবাঘের ছাল

বেশ কিছুদিন ধরেই অভিযোগ উঠছিল কলকাতায় বন্য পশুপাখির চোরাচালানকারীরা সক্রিয়। একইসঙ্গে বাঘের ছাল পাচারও চলছে। কিন্তু কিছুতেই হাতেনাতে পাচারকারীদের ধরা যাচ্ছিল না।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শনিবার ক্রেতা সেজে কলকাতার হাতিবাগানে একটি বাড়িতে হাজির হন বন দপ্তরের কর্মকর্তারা। কয়েক লাখ টাকার প্রলোভন দেখানোর পরই ঝুলি থেকে চিতা বাঘের ছাল বেরিয়ে পড়ে।

গ্রেপ্তার করা হয় সৌরভ দাস ওরফে গোপাল এবং তপব্রত মজুমদার নামে দু’জনকে। আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ওই চক্রের আরো কয়েকজনের নাম উঠে এসেছে। তাদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। দু’জনের বাড়িই শ্যামবাজারে।

বন্যপ্রাণী শাখা সূত্রে জানা গেছে, উদ্ধার হওয়া চিতাবাঘের ছালটি ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে বিক্রি করার চেষ্টা চলছিল। আটক ব্যক্তিদের  আগামীকাল ব্যাঙ্কশাল কোর্টে তোলা হবে।

বন্যপ্রাণী শাখার এক কর্মকর্তা বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই কলকাতাকে কেন্দ্র করে পশু-পাখি চোরাচালানের চেষ্টা করে চলেছে পাচারকারীরা। এর আগেও অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নতুন করে সক্রিয় হয়ে উঠেছিল চোরা চালানকারীরা। আমাদের কাছে খবর আসে, এক ব্যক্তি চিতা বাঘের ছাল বিক্রি করার চেষ্টা করছেন। নির্দিষ্ট তথ্য হাতে আসার পর ক্রেতা সেজে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরো জানান, আর কারা এই চক্রে রয়েছে আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে জানা যাবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা