kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

আত্মহত্যা করায় ছেলেকে পাপী বলছেন যাজক, পরিবারের বিরোধিতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২১:২১ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



আত্মহত্যা করায় ছেলেকে পাপী বলছেন যাজক, পরিবারের বিরোধিতা

আত্মহত্যা করেছে সন্তান। গত ৪ ডিসেম্বর ম্যাসন হুলিবার্গারের পর তার ক্যাথলিক মতাবলম্বী বাবা-মা চেয়েছিলেন অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় তাদের ১৮ বছরের ছেলেটির জীবনকে উদযাপন করবেন তারা, মৃত্যুকে নয়।

ক্রীড়াবিদ এবং টোলিডো বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধমূলক বিচারের শিক্ষার্থী ম্যাসনকে চার্চের যাজক ব্যক্তিগতভাবে চিনবেন না বলেই প্রার্থনা ও অন্ত্যেষ্টির আগেই তার বাবা মা জেফ্রি এবং লিন্ডা মিশিগান টেম্পারেন্সের যাজকের সঙ্গে দেখা করে সন্তানের ব্যাপারে আলোচনা করেন। ফাদার ডন লা কুইস্টা সন্তানের বিষয়ে খাতায় সবটা লিখেও রাখেন।

লিন্ডা হুলিবার্গার সাংবাদিকদের বলেন, ম্যাসন কীভাবে বাঁচত সেই ঘটনার উদযাপন করতে চেয়েছিলাম, কীভাবে সে মারা গেছে সেটা আমাদের লক্ষ্য ছিল না।

কিন্তু মাউন্ট কারমেল ক্যাথলিক চার্চে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া চলাকালীন হুলিবার্গাররা শোনেন যে যাজক ছয়বার 'আত্মহত্যা' শব্দটি বলেছেন। তিনি আরও বলেন যে ম্যাসন স্বর্গের পথে যেতে পারবেন না, কারণ তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

লিন্ডা বলেন, যাজক মূলত আমাদের পুত্রকে পাপী বলেছেন। অবশেষে, জেফ্রি হস্তক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নেন এবং যাজককে থামতে অনুরোধ করেন। কিন্তু লা কুইস্টা বলতেই থাকেন। বিষয়টি শেষ হলে হুলিবার্গাররা যাজককে জানিয়ে দেন, ম্যাসনের কবরস্থানে তিনি কোনোভাবেই যাবেন না। কারণ তারা যা চেয়েছিলেন তার উল্টোপথে গিয়ে সন্তানকে অপরাধী করে তুলেছেন তিনি। এখানেই শেষ না, হুলিবার্গার পরিবার ওই যাজকের অপসারণের দাবি জানিয়েছে।

ওয়াশিংটন পোস্টের একটি বিবৃতিতে, আর্চডোসিসের মুখপাত্র হলি ফোর্নিয়ার বলেন, একটি অসহনীয় পরিস্থিতিকে আরো কঠিন করে তোলা হলো, আমরা দুঃখিত।

ফোর্নিয়ার বলেন, লা কুইস্টা আর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া করবেন না। যাজক হিসেবে অন্যান্য কাজ করবেন তিনি। আমরা এই গভীর ক্ষতির জন্য দুঃখিত। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়াতে খ্রিস্টের ভালোবাসা ও নিরাময়ের শক্তিকেই জাগরিত করা হয়। দুর্ভাগ্যবশত, এই ক্ষেত্রে সেটি ঘটেনি।

ফোর্নিয়ার বলেন, পরিবারের অনুরোধ অনুসারে মাউন্ট কারমেলে থেকে লা কুইস্টাকে অপসারণ করার কোনো পরিকল্পনা নেই।

শতাব্দী ধরে, ক্যাথলিক চার্চ আত্মহত্যায় মৃত্যুর উপরে ধর্মীয় প্রভাব, এবং সামাজিক কলঙ্ক বিষয়ে সংগ্রাম করেছে। ১৯৬০-এর দশকে গির্জা আত্মহত্যায় মৃত্যু বিষয়ে আরও নরম দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করা শুরু করে। ১৯৯০-এর দশকে পোপ দ্বিতীয় জন পল ক্যাথলিক চার্চের ক্যাটেচিজমকে অনুমোদন করে স্বীকার করেন আত্মহত্যায় যারা মারা যান তদের অনেকেই মানসিক অসুস্থতার শিকারও।

যদিও চার্চ আত্মহত্যা সম্পর্কে আরও সমবেদনাপূর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করেছে কয়েক দশক ধরেই, তা সত্ত্বেও কিছু বহিরাগত যাজকদের মধ্যে এই নিয়ে সংকীর্ণতা রয়েছে। রুবি বলেন, "এখনও কিছু যাজক আত্মহত্যাকে পাপ হিসাবে দেখেন।"

শিকাগো-এলাকার মধ্যে আত্মহত্যায় প্রিয়জনের হারিয়েছেন যারা তাঁদের নিয়ে একটি দল গড়ার চেষ্টা করছেন তিনি। রুবি বলেন যে, তিনি বিশ্বাস করেন পুরোহিত ও গির্জার নেতাদের জন্য রোগীদের সাথে খোলাখুলিভাবে কথা বলা এবং আত্মহত্যা বিষয়ে চার্চের দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে ভীতি-বিচ্যুতি এড়ানোর জন্য এই নিরাময় প্রক্রিয়াটি খুব গুরুত্বপূর্ণ।

তাঁর কথায়, “পুরোহিতরা এমন ক্ষমতায় থাকেন যেখানে জনগণ তাদের কথা শোনে। সঠিক তথ্য দেওয়ার দায়িত্ব তাদের রয়েছে। দুর্ভাগ্যবশত, গির্জার নেতারা, মাঝে মাঝেই আত্মহত্যা ও মানসিক অসুস্থতা বিষয়ে খুব সংকীর্ণ এবং বিরোধী দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে থাকেন। তারা মানসিক অসুস্থতা বুঝতেই পারেন না। আমরা এর বিরুদ্ধে লড়াই করছি।"

জেফ্রে হুলিবার্গার ডেট্রয়েট ফ্রী প্রেসকে বলেন যে ম্যাসনের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়াতে ঘটা এই অসংবেদনশীলতা এবং দুঃখকে প্রতিরোধ করা, এবং ভবিষ্যতে যাতে অন্য পরিবারের সঙ্গেও এমনটা না ঘটে তা নিশ্চিত করার একমাত্র উপায় লাকুইস্তাকে অপসারণ করা। "আমরা ভয় পাচ্ছি যে, ক্যাথলিক গির্জা যেমন করে, তেমনই তাঁরা তাঁকে অন্যত্র পাঠাবে এবং সেখানে অন্য কারো সাথেও এটা হতে পারে," জেফ্রি সংবাদপত্রকে বলেন।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শেষে, তাদের বন্ধু ও পরিবার কবরস্থানে চলে যাওয়ার আগে, জেফ্রি এবং লিন্ডা গির্জার সামনে দাঁড়িয়ে বলেন,"ম্যাসন অনেক মানুষের জীবনের উপর প্রভাব ফেলেছে, তাঁর মতো ব্যক্তিত্ব হয় না। আজ আমাদের পরিবারের বার্তা, দয়া করে একে অপরের প্রতি সদয় হোন, যত্নশীলদের কাছে পৌঁছান এবং আপনার আন্তরিকতা প্রদর্শন করুন এবং নিঃশর্তভাবে ভালোবাসুন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা