kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

উইংস্টপ : সাদামাটা মেনুর কারণেই ফুলে-ফেঁপে উঠেছে যে রেস্টুরেন্ট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১৫:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উইংস্টপ : সাদামাটা মেনুর কারণেই ফুলে-ফেঁপে উঠেছে যে রেস্টুরেন্ট

জাঁকজমকপূর্ণ যেকোনো রেস্টুরেন্টে কার না খেতে মন চায়। কিন্তু আমেরিকার হাজারো রেস্টুরেন্টের মধ্যে 'উইংস্টপ' এ তালিকায় পড়ে না। অথচ সবচেয়ে জনপ্রিয় চেইন রেস্টুরেন্টগুলোর মধ্যে এটি স্থান করে নিয়েছে সাদামাটা বৈশিষ্ট্যের কারণে। খুব কমমূল্যে মুখরোচক খাবার পাওয়া যায়। মেনুর আইটেম বদলায় কদাচিৎ। বসার ব্যবস্থাও খুব বেশি নেই। এগুলোই নাকি এই রেস্টুরেন্টের কৌশল। আর এ কৌশল দিয়ে তারা আজ এ ব্যবসার চূড়ায়। বিজনেস ইনসাইডার তুলে ধরেছে এর কথা।

এ বছরের নভেম্বরে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, থার্ড কোয়ার্টারের মধ্যেই এদের রেভিনিউ ১৬.৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এরা টানা ১২ বছর ধরে তাদের বিক্রি ক্রমশ বৃদ্ধি করেই চলেছে।

রেস্টুরেন্টের সিইও চার্লি মরিসন বিজনেস ইনসাইডারকে জানান, ২১ বছর আগে এ রেস্টুরেন্টের যাত্রা শুরু হয়। আমাদের মেনুর মূল বৈশিষ্ট্য মুরগির হাড়বিহীন পাখনা। প্রথম থেকেই এটি এ রেস্টুরেন্টের হিট আইটেম। এই একটি মেনুতে সামান্য দুটো পরিবর্তন আনা হয়েছে। তা হলো নতুন দুটো ফ্লেভার দেওয়া হয়েছে। আর এতেই বিক্রি অনেক বেড়ে গেছে।

উইংস্টপ-এর মূল আকর্ষণ রেস্টুরেন্টের নকশা। এদের প্রতিটি শাখা গড়ে ১৭০০ বর্গফুটের মতো। এগুলোর পেছনে গড়ে খরচ হয় ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলার। প্রথমে উইংস্টপ থেকে খাবার নিয়ে বেরিয়ে যেতে হতো। পরে ক্রেতাদের বসে খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। তবে এর ৭৫ শতাংশ শাখায় এখনো বসে খাওয়ার ব্যবস্থা নেই।

এদের অতি সাধারণ মেনু মানুষের মন কেড়ে নিয়েছে। মোট বিক্রির ১৫ শতাংশ অর্ডার হয় অনলাইন এবং মোবাইলে। গত বছরের চেয়ে তা দ্বিগুণ হয়েছে।

অনলাইনে অর্ডার করার পদ্ধতিও অতি সাধারণ। এদের নিজস্ব সার্ভার নেই। যেকোনো অর্ডার সরাসরি রান্না ঘর অবদি চলে যায় এবং একটি পর্দায় দেখায়। এদের ৫০ শতাংশ ক্রেতাই তরুণ প্রজন্মের। এখানে বিভিন্ন ধরনের খাবার নেই। কেবলমাত্র চিকেন উইগংসকেই নানা রেসিপিতে বানানো হয়। ২০-৩০ ধরনের ফ্লেভার রয়েছে বলে জানান মরিসন। আর এই ব্র্যান্ড চেইন শপের এটাই মূল ও কার্যকর কৌশল বলে মনে করে কর্তৃপক্ষ।

এরা বছরে সীমিত সময়ের জন্যে ১১টি ফ্লেভারের উইংয়ের মেনু দেয়। এদের তিনটি ধরন রয়েছে। ফ্রাই, বিন এবং কোলস্ল। সবচেয়ে জনপ্রিয় লেমন পিপার। এই রেসিপি একেবারে প্রথম থেকে একইরকম আছে।

এই ব্র্যান্ডটি তুমুল জনপ্রিয় কোনো ব্র্যান্ড বলে দাবি করে না। তা ছাড়া এরা নতুন কোনো মেনুতেও বিশ্বাসী না। এই মেনুতেই প্রতিষ্ঠানটি সুন্দর এগিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন সিইও।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা