kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

৭ লক্ষণে বুঝে নিন আপনার আবেগ নিয়ে খেলছে প্রিয়জন

অনলাইন ডেস্ক   

১২ আগস্ট, ২০২২ ১২:৫৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



৭ লক্ষণে বুঝে নিন আপনার আবেগ নিয়ে খেলছে প্রিয়জন

প্রতীকী ছবি

যারা আবেগঘটিত নির্যাতনের শিকার হন, তারা বিষয়টি খুব সহজে বুঝে উঠতে পারেন না। মানসিক এ যাতনা দীর্ঘমেয়াদে গভীর ক্ষত তৈরি করতে পারে। কাজেই প্রেম বা দাম্পত্য সম্পর্কে বিষয়টি দ্রুত বুঝে ওঠাটা জরুরি। সঙ্গী বা সঙ্গিনী আপনার আবেগ নিয়ে খেলছেন কিনা তা বোঝার কিছু লক্ষণ রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এগুলো সূক্ষ্মভাবে ঘটে যায়। কাজেই বেশিরভাগ মানুষই তা ধরতে পারেন না। এদের সম্পর্কে জানান দিচ্ছেন অভিজ্ঞজনরা। নিচে ৭টি কারণ জেনে নিন। আপনি বুঝতে পারবেন আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনী আপনার আবেগ নিয়ে খেলছেন কিনা।

১. আপনজনের সকল ব্যর্থতার দায়ভার আপনাকে নিতে হচ্ছে
একটা স্পষ্ট লক্ষণ। তার যেকোনো ভুল বা ব্যর্থতার দায় আপনার ওপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। সবচেয়ে বাজে দিকটা হলো, আপনার নিরবতা বা প্রতিবাদ না করার প্রবণতা প্রতিনিয়ত এই পরিস্থিতিকে আরো ঘোলাটে করে। তারচেয়ে বাজে দিকটি হলো, আপনি এ নিয়ে তর্ক করলে পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকেই যাবে।  

২. কল না ধরা বা খুদেবার্তার উত্তর না দেওয়া
এ ঘটনা নিয়মিত ঘটলে তা আপনজনকে বেশ পীড়া দেয়। এটা নিয়মিত চলতে থাকলে আপনাদের সম্পর্কটি আগের মতো সহজ থাকবে না। একপেশে হয়ে যাবে, কর্তৃত্বপরায়ণ বলে মনে হবে। আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনী আশা করছেন, আপনি তার সবগুলো কল রিসিভ করবেন। তৎক্ষণাত না হলেও মেসেজের উত্তর দিন। তাকে গুরুত্ব দিন। এটাই তিনি আসলে দেখতে চান।

৩. আপনার সৃজনশীল কাজকে ছোট ও গুরুত্বহীন মনে করা 
আপনি প্রথমেই লক্ষ্য করবেন, আপনার সকল সৃজনশীল কাজের প্রশংসা বা গুরুত্ব মিলছে না সঙ্গীর কাছ থেকে। আপনি কোনো সঠিক কাজ করলেও তা অপরের কাছে ব্যর্থতা বলে গণ্য হবে। তিনি কখনোও আপনার কোনো সৃজনশীল কাজের প্রশংসা করবেন না।  

৪. সঙ্গী আপনার চরম গোপনীয়তাকে বন্ধুদের সামনে প্রকাশ করছেন
আমরা গোপন কথাগুলো সঙ্গী-সঙ্গিনীর কাছেই বলে থাকি। দুজনের গোপন বিষয়গুলো শেয়ার পরস্পরের মাঝেই করা হয়। অনেকক্ষেত্রেই কোনো সহায়তা পাওয়ার জন্যে হলেও গোপন প্রকাশ করতে হয়। কিন্তু যখন অপরজন আবেগের সুযোগ নিচ্ছেন, তখন তিনি আপনার গোপন বিষয়গুলো অন্যদের বলে দেবে।

৫. এমন কিছু বিষয়ে দোষারোপ করা যা আপনি কখনোই করেননি  
ভালোবাসার সম্পর্কে হৃদয়ভাঙার মতো কাজ থেকে বিরত থাকা উচিত। যদি দেখেন আপনার সঙ্গী এ ধরনের কাজ করতে কুণ্ঠাবোধ করেন না, তবে আপনাকে ভাবতে হবে। তিনি আপনাকে নিয়ে এমন কিছু প্রশ্ন তুলবেন যা আপনাকে সবসময় বিব্রত করবে। অথচ আপনি সে কাজটি থেকে সবসময় দূরে ছিলেন। অর্থাৎ, তিনি অযথাই আপনাকে দোষারোপ করতে থাকবেন।

৬ আপনি সবসময় আপনার তর্কে হারবেন  
তর্কে যৌক্তিক হলে আপনার কথা মেনে নেবে সঙ্গী বা সঙ্গিনী। কিন্তু তিনি যদি আপনার  আবেগ নিয়ে খেলতে চান তবে দেখবেন, আপনি সবসময় তার কাছে তর্কে হেরে যাচ্ছেন। অর্থাৎ, আপনার কোনো কথাই তিনি মেনে নিচ্ছেন না। এমনকি আপনাকে হারাতে তিনি সবরকমের পন্থাই গ্রহণ করবেন।  

৭. প্রতিনিয়ত আপনার ভাষা এবং নাম নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য করা  
মানসিক নির্যাতন মানুষের মনে স্থায়ী ক্ষত তৈরি করতে পারে। যে সঙ্গী বা সঙ্গিনী আপনাকে মানসিক আঘাত দিতে চান, তিনি মাঝে মধ্যেই বাজে নামে ডাকা এবং কটূক্তির মাধ্যমে আপনাকে মানসিক আঘাত দিতে থাকবেন।  
 
সূত্র: বেস্ট ওমেনস ম্যাগ



সাতদিনের সেরা