kalerkantho

বুধবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৮। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২১ সফর ১৪৪৩

ভাতঘুমে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে? কীভাবে বুঝবেন?

অনলাইন ডেস্ক   

১৬ জুলাই, ২০২১ ১৫:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাতঘুমে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে? কীভাবে বুঝবেন?

ভাত ঘুম শরীরের জন্য উপকারী বলে এতদিন জানা গিয়েছে। বহু গবেষণায় উঠে এসেছে দুপুরে অল্প করে ভাত ঘুম দেওয়া হলে তা শরীরের জন্য ভালো হয় আর পরে কাজেও বেশি মনোযোগ দেওয়া যায়। কিন্তু সেই ভাত অনেক সময় ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায়। কী করে বুঝেবেন কখন ভাতঘুম আপনার শরীরের জন্য ক্ষতিকর?

ভাতঘুমের উপকারিতা

১। ক্লান্তি, ঘুম কাটবে

২। কর্মচাঞ্চল্য বাড়বে

৩। সর্তকতা বাড়বে

৪। বেশি মনোযোগ দিতে পারবেন

৫। নজরদারি করার ক্ষমতা বাড়বে

৬। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে

৭। স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

১। ছোট ভাতঘুম: ক্লান্তি কাটিয়ে প্রাণবন্ত হওয়ার জন্য ২০ থেকে ২৫ মিনিটের ভাতঘুম আদর্শ। অনেকেই কাজের ফাঁকে হালকা একটি বিরতি নিয়ে ঘুমিয়ে নেন। এতে করে পরে কাজে বেশি মনোযোগী হওয়া যায়।

২। ক্যাফেইন ঘুম: চা, কফি খাওয়ার ঠিক পরই ঘুমিয়ে পড়তে হবে। ২০-২৫ মিনিট পর যখন উঠবেন তখন শরীরে ক্যাফেইন কাজ করা শুরু করে দেবে এবং ক্লান্তি কেটে যাবে।

৩। লম্বা ভাতঘুম: এই ধরনের ঘুমই যত সমস্যার মূল। ২৫ মিনিটের বেশি সময় ধরে যদি ঘুমান তাহলে ওঠার পর আরও ক্লান্ত লাগবে, আরও বেশি ঘুম পাবে এবং কাজে কিছুতেই মনোযোগ দিতে পারবেন না। অথচ দীর্ঘক্ষণ ঘুমিয়ে পড়েছিলেন বলে রাতে ঘুম আসতে দেরি হবে এবং তাতে শারীরিক সমস্যার আশঙ্কাও বাড়বে।

সূত্র: আনন্দবাজার



সাতদিনের সেরা