kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

ওয়ার্কআউটে চুলের যত্ন

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ মার্চ, ২০২১ ১১:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওয়ার্কআউটে চুলের যত্ন

গরমের তাপ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এবার ওয়ার্কআউটের রুটিনেওে এসেছে পরিবর্তন। অল্প ব্যায়াম করলেই ঘেমে যাচ্ছে সবাই। রোদের তেজ আর ঘাম মিলিয়ে চুলের উপর খুবই বাজে প্রভাব পড়ছে। ফলে চুল যাচ্ছে নষ্ট হয়ে। তবে কিছু বিষয় মেনে চললে চুল ভালো রাখা সম্ভব। ওয়ার্কআউটের আগে ও পরে দুবারই আপনাকে নিতে হবে চুলের নিয়মিত যত্ন।

ওয়ার্কআউটের আগের প্রস্তুতি: ব্যায়াম শুরুর আগে চুল বেঁধে নিতে হবে। সেই সঙ্গে মানানসই কোনো হেয়ারস্টাইলও করতে পারেন। শুধু লক্ষ্য রাখবেন যে চুল যেন আপনার ঘাড়ে এসে না পড়ে। পনিটেল বা খোঁপা খুব ভালো হয় করলে শরীরচর্চার সময়ে। এতে মন থেকেই প্রশান্তি মেলে। কার্ডিও করার সময়ে বেনুনি করলে ভালো হয়। ক্লিপ, পিন, হেয়ারব্যান্ড ব্যবহার করতে পারেন চুলকে বাঁধতে। হালকা করে বাঁধতে রিবন ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুলের ভেঙে যাওয়া কমবে।

স্কাল্প ঘেমে যাতে গন্ধ না বেরোয় সেই জন্যে হেয়ার পারফিউম লাগাতে পারেন। তবে পারফিউমে এলকোহল থাকলে তা বেশি ভালো নয়। কারণ এতে চুল শুষ্ক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সুগন্ধি স্প্রে করে নিলে সেই গন্ধে মনও থাকে শান্ত। সাইন স্প্রে খুব ভালো কাজ দেয় এই সময়ে। আবার চুল সিল্কিও থাকে।

ওয়ার্কআউটের পরের যত্ন: এবার শুরু হবে চুলের আসল পরিচর্যা। সময়ে মতো চুল পরিষ্কার করতে ভুলবেন না। শ্যাম্পু ও কন্ডিশনিং করাটা খুব দরকারি যারা প্রতিদিন ওয়ার্কআউট করেন তাদের জন্যে। শ্যাম্পু অতিরিক্ত তেল ও ঘাম শুষে নিতে পারে। ময়লাও ধুয়ে যায় সেই সঙ্গে। গোসলের পানির তাপমাত্রা খুব গরম বা খুব ঠান্ডা যেন না হয়। শ্যাম্পু করার পর ৩-৫ মিনিট ধরে চুলে কন্ডিশনার রেখে দেবেন।

চুল ধোওয়ার পর টাওয়েল দিয়ে শুকাবেন। তবে হেয়ার ড্রায়ার পারলে ব্যবহার করবেন না। হেয়ার সিরাম লাগাবেন রোজ। এতে জট ছাড়াতেও সুবিধে হয়।

সূত্র: কলকাতা২৪



সাতদিনের সেরা