kalerkantho

সোমবার । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৫  মে ২০২০। ১ শাওয়াল ১৪৪১

লকডাউনে 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' করছেন? এ বিষয়ে সতর্ক হোন...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মে, ২০২০ ১০:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



 লকডাউনে 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' করছেন? এ বিষয়ে সতর্ক হোন...

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউন চলছে। এ সময়ে অনেককেই অফিস যেতে হচ্ছে না। কিন্তু তাই বলে কি ছুটিতে আছেন? একেবারেই নয়। আপাতত বাড়িতে বসেই জমিয়ে কাজ চলছে, কেতাবি ভাষায় যাকে আজকাল বলে ওয়ার্ক ফ্রম হোম! দিনভর ল্যাপটপে মুখ গুঁজে বসে থাকছেন, তাও আবার খাটে বসে, তাই তো? আর সারাদিন ঘাড়ে-কোমরে ব্যথা লেগেই আছে। 

গবেষণা বলছে, খাটে বসে ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করলে আপনার শরীরের ওপর তাঁর ভয়ঙ্কর প্রভাব পড়ে। মূলত এই কারণের জন্যই খাটে বা বিছানায় বসে বই পড়তেও মানা করেন চিকিৎসকেরা। কারণ খাটে বসে কাজ করলে পেছনে সাপোর্ট দেওয়ার মতো কিছু থাকে না, আপনি বালিশ টালিশে হেলান দিয়ে কাজ চালাতেই পারেন, কিন্তু শরীরের জন্য তা মোটেও কার্যকর নয়।
 
আর বিছানায় বসে কাজ করলে আপনি নিজের অজান্তেই সামনের দিকে ঝুঁকে পড়েন, এটা স্পাইন বা শিরদাঁড়ার জন্য ভালো না। প্রথম দিকে শুধু ঘাড় ব্যথা, কোমর ব্যথা হবে, কিন্তু পরে কিন্তু স্লিপড ডিস্কও হতে পারে।
 
দেখে নিন এছাড়া কী কী হতে পারে খাটে বসে কাজ করলে...
 
ঘুমের ব্যঘাত
 
কারণ বিছানায় কাজ করলে ঘুম আর কাজের সময়ের মধ্যে কোনো ফারাক থাকে না। মস্তিষ্ক আমাদের দিয়ে যা করায় আমরা তাই করি। বিছানার সঙ্গে ঘুমের সরাসরি যোগ থাকে, ফলে বিছানায় বসে কাজ করলে ঘুম এবং কাজ দুয়েরই ব্যঘাত ঘটে।
 
বাড়িতে টেবিল চেয়ারের ব্যবস্থা না থাকলে কী করবেন
 
একান্তই যদি বিছানায় বসে কাজ করতে হয়, তাহলে পেছনে যথাযথ ব্যাক সাপোর্ট রাখবেন। ল্যাপটপ টা বিছানা থেকে উঠিয়ে আপনার চোখের সমতলে আনতে হবে, যাতে আপনাকে ঝুঁকে পড়ে কাজ না করতে হয়। সেজা হয়ে বসে কাজ করবেন। মাথা ঘাড় আর শিরদাঁড়া যেন একই সমতলে থাকে।

একই ভঙ্গিতে বেশিক্ষণ টানা বসে থাকবেন না। কাজের মাঝে ছোট বিরতি নিয়ে মাঝেমাঝেই মিনিট পাঁচেকের জন্য হাঁটেন। আর সকাল সন্ধ্যে আধ ঘণ্টা মতো হালকা শরীরচর্চা করে নিলে আপনার উপকার হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা