kalerkantho

থাইরয়েড ক্যান্সার? চিকিৎসা আছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১৭:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



থাইরয়েড ক্যান্সার? চিকিৎসা আছে

আজকাল থাইরয়েডের রোগির সংখ্যা দিনে দিনে বেড়ে চলছে। সাধারণত ৪০–৪৫ বছর বয়সের পর এই রোগ হয়। আজকাল অবশ্য ৩০–৩৫ বছর বয়সীদেরও এই রোগ হচ্ছে। সময়মতো চিকিৎসা না করালে একসময় এই রোগ ক্যান্সারে রূপ নেয়। ক্যান্সারের নামেই আতঙ্কে ভুগতে থাকেন অধিকাংশ মানুষ। মৃত্যুভয়, খরচসাপেক্ষ চিকিৎসা, শারীরিক কষ্ট সব মিলে এই চিন্তা খুব অমূলকও নয়। তবে চিকিৎসকদের মতে, আধুনিক চিকিৎসাব্যবস্থা ও গবেষণা এই অসুখ সম্পর্কে ভয় ও ধারণা অনেকটা বদলাতে সক্ষম হয়েছে। কারণ সব ক্যান্সার সমান বিপদজনক নয়।

থাইরয়েড ক্যান্সারের পরীক্ষা–নিরীক্ষা

► থাইরয়েড গ্ল্যান্ডের টেকনিসিয়াম স্ক্যান করে সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে আরও কিছু পরীক্ষা করা হয়।

► সরু সূঁচ দিয়ে গ্ল্যান্ড থেকে রস টেনে নিয়ে 'এফএনএসি' পরীক্ষা করা হয়। ক্যান্সার থাকলে এই পরীক্ষায় ধরা পড়ে।

'থাইরোগ্লোবুলিন' নামে ক্যান্সার মার্কার পরীক্ষা করতে হয়।

► কিছু ক্ষেত্রে ক্যালসিটোনিন, জেনেটিক মার্কার ইত্যাদি পরীক্ষা করা হয়।

চিকিৎসা

► এই রোগ সাধারণত দ্বিতীয় বা তৃতীয় পর্যায়ে ধরা পড়ে। রোগ যে পর্যায়েই ধরা পড়ুক না কেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রে অপারেশনে রোগ সেরে যায়। তারপর থাইরক্সিন জাতীয় ওষুধ খেয়ে যেতে হয়।

► স্ক্যান করে যদি দেখা যায় শরীরের অন্যত্র রোগ ছড়িয়েছে, রেডিও আয়োডিন থেরাপি বা রেডিও আয়োডিন অ্যাবলেশন করার জন্য হাসপাতালে ২–৩ দিনের জন্য ভর্তি করে বেশি মাত্রায় তেজস্ক্রিয় আয়োডিন খাওয়ানো হয়। তার পরও ৭–১০ দিন রোগীর শরীর থেকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি বিকিরিত হয়। এই সময়টা বাড়িতে একটু সাবধানে থাকতে হয়। বিশেষ করে শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের থেকে দূরে থাকতে হয়। আলাদা করে দিতে হয় বাথরুম।

► রেডিও আয়োডিন থেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তেমন নেই। সামান্য কিছু ক্ষেত্রে ব্লাড কাউন্ট একটু কমে যেতে পারে। তবে সাধারণ চিকিৎসাতেই তা ঠিক হয়ে যায়।

► ভালো খবর হলো, চিকিৎসার সম্পন্ন হওয়ার পর থাইরয়েড ক্যান্সার ফিরে আসার সম্ভাবনা একেবারেই কম। তবে কারও ক্ষেত্রে ফিরে এলেও আবার রেডিও আয়োডিন অ্যাবলেশন করিয়ে সুস্থ করে তোলা সম্ভব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা