kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

স্মার্টফোন ঘাঁটাঘাঁটির ধরন দেখে বোঝা যায় ব্যক্তিত্ব!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ জুলাই, ২০১৯ ১৫:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্মার্টফোন ঘাঁটাঘাঁটির ধরন দেখে বোঝা যায় ব্যক্তিত্ব!

প্রতীকী ছবি

আমাদের স্বভাব, অভ্যাস ইত্যাদি কি ধরনের তা আমরা নিজেরাই ভালো বুঝি। তেমনি আবার আমাদের ব্যক্তিত্ব কেমন, তা কিন্তু বুঝতে পারে অন্য ব্যক্তিরা। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, স্মার্টফোন ঘাঁটাঘাঁটির ধরন দেখে ব্যক্তিত্ব আঁচ করা যায়।অস্ট্রেলিয়ার আরএমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমীক্ষাটি করা হয়েছে। 

অস্ট্রেলিয়ার আরএমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ফ্লোরা সালিম জানিয়েছেন, ফোনে কথা বলার সময় আমরা কতটা জোরে হাঁটি, কতটা পথ হাঁটি, রাতে কখন ফোনে কথা বলি, এসব থেকে আমাদের ব্যক্তিত্ব বোঝা যায়।

তিনি জানান, সারাদিন বা সপ্তাহব্যাপী কে কেমন কাজ করছে, তার ভিত্তিতেও ব্যক্তিত্বের একটা আঁচ পাওয়া যায়।

কার ব্যক্তিত্ব কেমন?

সারা সপ্তাহ ধরে যারা সমান সক্রিয় থাকেন, তাঁরা আসলে ইন্ট্রোভার্ট বা অন্তর্মুখী। বহির্মুখী বা এক্সট্রোভার্ট চরিত্রের মানুষ সপ্তাহজুড়ে নানারকম লোকের সঙ্গে দেখা করেন। পরিকল্পনা ছাড়াই নতুন কাজে নেমে পড়েন।

অমায়িক চরিত্রের মানুষেরা সাধারণত সপ্তাহান্তে অথবা সপ্তাহের বাকি দিনগুলোয় সন্ধ্যায় ব্যস্ত থাকেন বেশি। বন্ধুত্বপূর্ণ অথবা দয়াশীল চরিত্রের নারীরা যেমন ফোনে আউটগোয়িং কল খুব বেশি করেন।

খুব অল্পদিনের মধ্যে একই মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করেন না ন্যায়নিষ্ঠ ব্যক্তিরা। সংবেদনশীল নারীরা খুব ঘনঘন মোবাইল ফোন দেখেন, এমনকি মাঝরাতেও, নতুন কিছু এলো কী না স্মার্টফোনে, দেখে নেন বারবার। আবার সংবেদনশীল পুরুষেরা ঠিক তার উল্টোটা করেন। অনুসন্ধিৎসু স্বভাবের লোকেরা খুব কম ফোন রিসিভ করেন।

আরএমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি-এর ছাত্র ন্যান গাও জানান, মানুষের ফোন সংক্রান্ত এসব ব্যবহার দেখে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নানা ধরনের কাজ করে। যেমন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্রেন্ড রিকমেন্ডেশন আসে গ্রাহকের ব্যবহার নিয়ে গবেষণার পরেই। কিন্তু তারপরেও যেটা সবচেয়ে মজার বিষয়, আমরা নিজেদের চরিত্র সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারি। অনেক অভ্যাস ও আচরণ আমরা সচেতনভাবে করি না।

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা