kalerkantho

বুধবার । ২৪ জুলাই ২০১৯। ৯ শ্রাবণ ১৪২৬। ২০ জিলকদ ১৪৪০

জীবন বদলে দেয়া গল্প

মোস্তফা কামাল   

২০ জুন, ২০১৯ ১০:৫৭ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



জীবন বদলে দেয়া গল্প

ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসানের একটি উক্তি দিয়ে লেখাটা শুরু করছি। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আসরে ওয়েস্টইন্ডিজকে হারানোর পর সাকিব এক সাক্ষাৎকারে বললেন, নিজের সঙ্গে নিজের যুদ্ধে জিততে হয়। 

সত্যিই তো! নিজের রেকর্ড তো নিজেকেই ভাঙতে হয়! সাকিব নিশ্চয়ই তাঁর জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে এ কথা বলেছেন। ১৭ জুনের ম্যাচে ওয়েস্টইন্ডিজ করেছিল ৩২১ রান। এতো বড় রানের পাহাড় গড়েও টাইগার দলের কাছে হার মানতে হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এও কি সম্ভব? 

তরুণদের স্বপ্ন দেখাতে এবং সফল হওয়ার কলাকৌশল শেখাতে কালের কণ্ঠের অনলাইনে শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক আয়োজন ‘আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখো।’ সাহিত্যিক ও সাংবাদিক মোস্তফা কামাল নিয়মিত লিখছেন। স্বপ্ন দেখাবেন তরুণদের। স্বপ্ন আর আশাজাগানিয়া লেখা পড়ুন কালের কণ্ঠ অনলাইনে।

হ্যাঁ, সেই রকম মনোবল ও ইচ্ছাশক্তি থাকলে অবশ্যই সম্ভব। তার প্রমাণ সাকিব আল হাসান এবং লিটন দাস। সাকিব একাই অপরাজিত ১২৪ রান করে বিশ্বের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেটার হয়ে যান। যেন স্বপ্নের মতোই ঘটল পুরো ব্যাপারটা। বদলে দিলেন ক্রিকেট বিশ্বকাপের ধারণা। ইতিহাস তো এভাবেই সৃষ্টি হয়।

যে লিটন দাস পরপর তিনটি ম্যাচে খেলারই সুযোগ পাননি। তিনি নেমেই গড়লেন ইতিহাস! এক খেলাতেই পাল্টে গেলো তাঁর জীবন। প্রতিটি বাঙালির হৃদয়ের মণিকোঠায় তাঁর নাম! 

আমাদের চোখের সামনেই ঘটে যাচ্ছে অসাধারণ সব ঘটনা। এসব ঘটনা আমাদের চোখ খুলে দেয়। এর থেকে আমাদের শিক্ষা নিয়েই আমাদের পথ চলতে হবে। তাহলেই জীবন পাল্টে যাবে। 

এবার একটি গল্প বলি। কোথাও গল্পটি আমি পড়েছিলাম। ছোট্ট এক কিশোর লেখাপড়ার খরচ জোগানোর জন্য বাড়ি বাড়ি ফেরি করত। ফেরি করতে করতে এক সময় তার ভীষণ ক্ষুধা পেল। সে এক বাড়িতে গিয়ে দরজায় টোকা দিল। দেখল, এক ভদ্রমহিলা বেরিয়ে এলেন। তিনি জানতে চাইলেন, কি চাই?

কিশোর ছেলেটি শুকনো গলায় বলল, আমার ভীষণ পানির পিপাসা লেগেছে। দয়া করে আমাকে এক গ্লাস পানি খাওয়াবেন?

ভদ্রমহিলা ঘরের ভেতরে গেলেন। তিনি পানির পরিবর্তে এক গ্লাস দুধ নিয়ে এসে ছেলেটির হাতে দিলেন। ছেলেটি বিস্ময়ের দৃষ্টিতে দুধের গ্লাসের দিকে তাকিয়ে রইল। অতঃপর দুধ পান করে সে ভীষণ তৃপ্তি অনুভব করল। ভদ্রমহিলার প্রতি কিশোর ছেলেটির শ্রদ্ধা বেড়ে গেলো। 

এর পরের ঘটনা বিস্ময়কর। কিশোর ছেলেটি এক সময় বড় ডাক্তার হলো। তার নামডাক সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ল। একদিন এক বৃদ্ধা মহিলা হাসপাতালে তার কাছে এলো চিকিৎসা নিতে। ভদ্র মহিলাকে দেখার পর সে চিনতে পারল। সে মনে মনে বলল, এতো সেই মহিলা, যিনি তাকে পানির বদলে দুধ খাইয়েছিলেন। 

ভদ্রমহিলা অবশ্য ডাক্তারকে চিনতে পারেননি। চিকিৎসা নিতে এসে দেখলেন, নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য তার প্রচুর টাকা খরচ হবে। কিন্তু এতো টাকা খরচ করার মতো সামর্থ তার নেই। কিন্তু চিকিৎসা তো আর বন্ধ রাখা যায় না! ডাক্তার চিকিৎসা শুরু করলেন। বিল দেয়ার সময় ভদ্র মহিলা দেখলেন তার বিল দেয়া হয়ে গেছে। 

ভদ্র মহিলা বিস্মিত! কে দিল তার বিল! তখন তার হাতে একটি চিরকুট ধরিয়ে দেয়া হলো। তাতে লেখা, এক গ্লাস দুধের বিনিময়ে পুরো টাকা পরিশোধ হলো। 

কাজেই জীবন কোথায় কিভাবে বদলে যায় তা কেউ জানে না। এমন কিছু করতে হবে যা মানুষের উপকারে আসে। সেই উপকারই এক সময় নিজের জীবনের জন্য কাজে লেগে যায়। 

লেখক : সাহিত্যিক ও নির্বাহী সম্পাদক, কালের কণ্ঠ।     

পড়ুন আগের কিস্তি...
তরুণরাই সব বদলে দেবে

মন্তব্য