kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

দুই সপ্তাহে ভুঁড়ি কমানোর কৌশল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ মে, ২০১৯ ২০:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুই সপ্তাহে ভুঁড়ি কমানোর কৌশল

দীর্ঘ সময় ধরে ল্যাপটপে মুখ গুঁজে কাজ করা কিংবা ফাস্ট ফুড বেশি খাওয়া, শারীরিক কসরতের অভাবে অনেকেরই মেদভুঁড়ি জমে যায়। ভুঁড়ির চাপে জীবন জেরবার হওয়ার উপক্রম। কিন্তু কিছুতেই ভুঁড়ি আর কমে না।

এ নিয়ে চিন্তার কারণ নেই। ১৫ দিনের মধ্যেই ভুঁড়ি কমানো সম্ভব। এজন্য মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম ও খাদ্যাভাস।

১টা কলা, ১টা কমলা, অর্ধেক কাপ লো-ফ্যাট দই, ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল, সামান্য আদা, ২ টেবিল চামচ ফ্লাক্স সিড আর ২ টেবিল চামচ প্রোটিন ড্রিংক একসঙ্গে ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নিতে হবে। প্রতিদিন, দিনের কোনো এক সময়ে সেই ড্রিংক খেলে এক সপ্তাহের মধ্যে ভুঁড়ি কমতে শুরু করবে।

ঝটপট ভুঁড়ি কমাতে চাইলে মসুর ডাল একেবারেই খাওয়া যাবে না।  প্রোটিনে ভরপুর মসুর ডালে অনেক পুষ্টিগুণ রয়েছে ঠিকই, কিন্তু ভুঁড়ি বাড়াতেও এক্সপার্ট।

প্রতিদিন নিয়ম করে ১ চা চামচ গোটা জিরা খেতে পারেন। একদিনও বাদ দেবেন না। খাওয়া শুরু করার আগে ওজন লিখে রাখুন, ১৫ দিন পর আবার ওজন মাপুন। নিজেই অবাক হয়ে যাবেন।

কলা দিয়ে জিরা খেলেও ওজন কমে। জিরা যে শুধু চর্বি কমায়, তাই নয়। অস্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরলকেও শরীর থেকে বের করে দেয়। ফলে যারা ভুঁড়ি কমানোর জন্য জিমে গিয়ে ঘাম ঝরাচ্ছেন, একবার ১৫ দিনের জন্য জিরা খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন।

গবেষকরা বলছেন, জিরায় আছে 'থাইমল' যার কাজ হলো লালা নিঃসরণকারী গ্রন্থিকে উত্তেজিত করা। ফলে, খাবার ভালো হজম হয়। এছাড়াও, জিরার গুণে পরিপাকতন্ত্র ভালো কাজ করে। 

হজমের গণ্ডগোল হলে জিরা দিয়ে চা খেতে পারেন। উপকার পাবেন। কিংবা, এক গ্লাস পানিতে ১ চা চামচ জিরা দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। পানির রং লালচে হয়ে এলে নামিয়ে রাখুন। ঠান্ডা করে, সেই পানি দিনে তিনবার খান। হজমশক্তি বাড়বেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা